বাঁশখালীতে এ.পি.এল সিটি সেন্টার ও ইলিয়াস আরব হাসপাতালের শুভ উদ্বোধন

মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের, বাঁশখালী : বাঁশখালীতে এ.পি.এল সিটি সেন্টার ও ইলিয়াস আরব হাসপাতালে শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার (২১ মার্চ) রাত ৮ টায় উপজেলার পুকুরিয়া ইউনিয়নের চৌমুহনী বাজারে আরব প্রপার্টিজ লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনায় নিজস্ব ভবন মার্কেট এলাকায় এপিএল সিটি সেন্টার ও বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান ইলিয়াস আরব হাসপাতালের যাত্রা শুরু হয়েছে।

পুকুরিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল আমিন সিকদার এর সভাপতিত্বে উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুকুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আসহাব উদ্দিন। উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুকুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মাহবুব আলী। খতমে বুখারী অনুষ্ঠানে মোনাজাত পরিচালনা করেন আনোয়ারা বরকল মাদ্রাসার পরিচালক আল্লামা মুফতি মাওলানা আব্দুস সাত্তার। বিশেষ উপস্থিত ছিলেন,পুকুরিয়া মুখলেছিয়া এমদাদুল উলুম মাদ্রাসার মুহতামিম হাফেজ মাওলানা নুর আহমদ, চাঁদপুর বেলগাঁও চা বাগান এর ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ আবুল বাশার, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সদস্য মোহাম্মদ আবুল কালাম, পুকুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ আবু মুছা, পুকুরিয়া চৌমুহনী ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মুহাঃ বোরহান এম নেওয়াজ, পুকুরিয়া ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোহাম্মদ ফরিদ আহমদ, পুকুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ জামাল সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ইউনুস,পুকুরিয়া ৭নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ ফখরুজ্জামান, ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ কামরুল ইসলাম, ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ সিরাজুল হক, পুকুরিয়া চৌমুহনী ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম, মোঃ জয়নাল ও মোঃ ওসমান প্রমূখ।

এ.পি.এল সিটি সেন্টার ও ইলিয়াস আরব হাসপাতাল লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব মোঃ ইলিয়াস জানান, এই এলাকার মানুষের জন্য স্বাস্থ্যসেবার এক নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে এই সিটি সেন্টার ও ইলিয়াস আরব হাসপাতালকে গড়ে তোলা হবে। সত্যিকারের স্বাস্থ্য সেবার উদ্দেশ্যে হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার চালু করা হয়েছে। আবাসিক চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা সেবা দেওয়া হবে।

তিনি জানান, এই হাসপাতালে অভিজ্ঞ চিকিৎসক ও সার্জন দ্বারা অত্যাধুনিক ডিজিটাল মেশিনের মাধ্যমে সব সেবা প্রধান করা হবে। হাসপাতালটি বেশ পরিচ্ছন্ন ও মনোরম পরিবেশের। চিকিৎসকদের জন্য আলাদা কক্ষ, রোগীদের জন্য ওয়েটিংরুম, ফার্মেসি, রোগীদের কক্ষ সবকিছুই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন।

ঘরের কাছে এমন একটি স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র থাকায় অনেক উপকার হবে এ এলাকার মানুষের। বিশেষ করে নারী ও শিশুদের চিকিৎসাসহ জরুরি সেবাগুলো সহজেই এখান থেকে পাওয়া যাবে।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.