ইউএনও সাইদুজ্জামান চৌধুরীর কর্মতৎপরতার সুফল পাচ্ছেন বাঁশখালীবাসী

BanshkhaliTimes

তাফহীমুল ইসলাম, বাঁশখালী টাইমস: বাঁশখালীর জনগুরুত্বপূর্ণ ইস্যু ও সাধারণ মানুষের দুর্দশা লাঘবে তড়িৎ পদক্ষেপ নিয়ে প্রশংসায় সিক্ত হচ্ছেন বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাইদুজ্জামান চৌধুরী।

তিনি বাঁশখালীতে ক্যারিয়ারের প্রথবারের মতো ইউএনও হিসেবে যোগদান করেন গত ৩১ মার্চ। যোগদানের পর থেকেই উপজেলার মানুষের সেবায় তিনি সর্বদা আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি যোগদানের পর থেকেই ইউএনও অফিস সম্পর্কে সাধারণ মানুষের প্রচলিত ধারণা পাল্টে যেতে শুরু করে। মানুষ নানা সমস্যা নিয়ে ছুটে আসেন তার অফিসে। তিনিও দেখিয়ে দেন সুন্দর সমাধানের পথ। সরকারি কর্মকর্তা হলেও দায়িত্ব সচেতন এই ইউএনও’র আন্তরিক কর্মতৎপরতায় অল্প সময়েই তিনি হয়ে ওঠেন সাধারণ জনগণের ‘মনের মানুষ’।

কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকার ঘোষিত চলমান লকডাউন বাস্তবায়নেও কাজ করে যাচ্ছেন সক্রিয়ভাবে। সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ, সেনাবাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত টিম নিয়ে দিনব্যাপী রয়েছেন মাঠে। লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি অমান্যকারীদের মুখোমুখি করছেন জবাবদিহিতার। সন্তোষজনক জবাব না পেলে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে দিচ্ছেন শাস্তিও। কড়া লকডাউনের প্রথম তিনদিনে ৭৬ মামলায় আদায় করেন ৩১ হাজার ৩৫০ টাকা জরিমানা।

লকডাউনে অসহায় হয়ে পড়া মানুষের মাঝে পৌঁছে দিচ্ছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত উপহার, ত্রাণ সামগ্রী। মৎস্য চাষী, পশু খামারীদের মাঝেও পৌঁছে দেন সরকার প্রদত্ত সহায়তা। হাতির আক্রমণ, অগ্নিকান্ডসহ বিভিন্ন দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থের পরিবারকে দেন উপজেলা প্রশাসনের জরুরী সহায়তা। এছাড়াও জনগণের স্বার্থ বিঘ্নিত হবার অভিযোগ পেলে সরেজমিনে ছুটে গিয়ে দ্রুত সমাধান দিতেও দেখা গেছে এই কর্মতৎপর ইউএনওকে। এমনকি ফেসবুকে দুর্দশাসংশ্লিষ্ট পোস্টে ইউএনও’র আইডি মেনশন করে দিলেও সেখানে রেসপন্স করতে দেখা গেছে।

এ প্রসঙ্গে ট্রান্সপারেসি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) প্রাক্তন কর্মকর্তা, বিশিষ্ট উন্নয়নকর্মী ও সমাজসেবী এজিএম জাহাঙ্গীর আলম বাঁশখালী টাইমসকে বলেন- ‘সাধারণ মানুষ ঠিক যেমন প্রশাসক প্রত্যাশা করেন, ঠিক তেমনটাই সেবা দিয়ে যাচ্ছেন বর্তমান ইউএনও মহোদয়। তাঁর আন্তরিক ব্যবহার ও অনিয়মের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে খুব সহজেই মানুষের মনে স্থান করে নিয়েছেন।’

বাঁশখালীতে দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতা জানতে চাইলে সাইদুজ্জামান চৌধুরী বাঁশখালী টাইমসকে বলেন-বাঁশখালীতে আমার কর্মকাল খুব বেশিদিন না হলেও চেষ্টা করছি সরকারি বিধিবিধান মেনে মানুষকে সেবা দিতে। এক্ষেত্রে বাঁশখালীর সকল মানুষের সহযোগিতা পাচ্ছি। বর্তমান করোনা মহামারির সময়ে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের মাধ্যমে সংক্রমণ রোধ করা। সকলের সহযোগিতায় আমরা এ মহামারি রোধ করতে পারবো ইনশাআল্লাহ ।

সাইদুজ্জামান চৌধুরী ৩৪ তম ইউএনও হিসেবে বাঁশখালীতে যোগদান করেন চলতি বছরের ৩১ শে মার্চ। ৩৩ তম বিসিএসে প্রশাসন ক্যাডারের উত্তীর্ণ এই সরকারি কর্মকর্তা এর আগে সিরাজগঞ্জের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.