জ্ঞানতাপস প্রফেসর ড. মুঈনুদ্দীন আহমদ খান আর নেই

BanshkhaliTimes

ডেস্ক নিউজ: ইতিহাসবিদ, জ্ঞানতাপস, তাত্ত্বিক, শিক্ষক ও সূফি প্রফেসর ড. মুঈন উদ-দীন আহমদ খান আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রবিবার সকাল ৯টার দিকে চট্টগ্রাম শহরের নিজ বাসায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর।

ড. খানের ছাত্র মাসুদ জাকারিয়া জানান, সাম্প্রতিক সময়ে বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগলেও শনিবার তার শারীরিক অবস্থা স্বাভাবিক ছিল। প্রতিদিনের মতো সকালে নাশতা সেরে সংবাদপত্র পড়েন। এরপর বিশ্রামরত অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

রবিবার বাদ জোহর চট্টগ্রামের আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে ড. মুঈন উদ-দীন আহমদ খানের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

এ শিক্ষাবিদ ১৯২৬ সালের ১৮ এপ্রিল চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি ইউনিয়নে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ থেকে স্বর্ণপদকসহ স্নাতক, স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করার পর ফুল-স্কলারশিপ নিয়ে কানাডার ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আরেকটি স্নাতক ডিগ্রি করেন। পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘দক্ষিণ এশিয়া’ বিষয়ে দীর্ঘদিন গবেষণা করেন; এবং কিছুদিন ইন্দোনেশিয়ায় গিয়ে গবেষণা করেন।

১৯৬১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘বাংলার সামাজিক ইতিহাস’ বিষয়ে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন। এরপর পাকিস্তানের করাচি বিশ্ববিদ্যালয়ের লেকচারার হিসেবে কর্মরত ছিলেন অনেক দিন। ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় দেশে ফিরে আসেন এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রফেসর হিসেবে নিযুক্ত হন। ১৯৭২ সালে তিনি ইসলামি ফাউন্ডেশনের প্রথম পরিচালক হিসেবে নিযুক্ত হন। বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় লিখিত তার ১৮টি বই এবং শতাধিক প্রবন্ধ বিশ্বের নানা স্থান থেকে প্রকাশিত হয়। এ ছাড়া ইবনে খালদুনের ‘আল মুকাদ্দিমা’র ভূমিকাসহ বেশ কিছু বই অনুবাদ করেছেন।

ড. মুঈন উদ-দীন আহমদ খানের উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে রয়েছে মুসলিম স্ট্রাগল ফর ফ্রিডম ইন বেঙ্গল, বাংলায় ফরায়েজি আন্দোলনের ইতিহাস, ইসলামে দর্শন চিন্তার পটভূমি, যুক্তি তত্ত্বের স্বরূপ সন্ধান: প্রাচ্য বনাম প্রতীচ্য এবং অরিজিন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অব এক্সপেরিমেন্টাল সায়েন্স: এনকাউন্টার উইথ দ্য মডার্ন ওয়েস্ট।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published.