বাঁশখালীর ছেলে সোমেনের নেতৃত্বে ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ বন্ধে প্রচারণা

বাঁশখালী টাইমস : চট্টগ্রামে চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ বন্ধে জনসচেতনতা তৈরিতে প্রচারণা শুরু করেছে ডি ইঞ্জিনিয়ার্স ক্লাব (ডিইসি)।

বাঁশখালীর সাধনপুরের ছেলে সোমেন কানুনগোর নেতৃত্বে এই ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন নগরীতে ব্যাপক সাড়া ফেলে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে ডি ইঞ্জিনিয়ার্স ক্লাবের সদস্যরা এ প্রচারণা শুরু করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সাল থেকে চট্টগ্রামে দক্ষ ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট ও শিক্ষা গবেষণামূলক কাজের সাথে যুক্ত আছে ডি ইঞ্জিনিয়ার্স ক্লাব (ডিইসি)।

সংগঠনটির এ কর্মসূচিতে চট্টগ্রাম থেকে ফেনী পর্যন্ত সকল স্টেশনে যাত্রী ও পথচারীদের মধ্যে পাথর ছোড়ার ক্ষতিকর দিক, পরিণতি ও শাস্তি সম্পর্কিত প্রচারপত্র বিতরণ করা হয়েছে। এতে ডিইসি’র সদস্যদের পাশাপাশি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশ নিয়েছে।

রেলওয়ে সম্পর্কিত আইন ও সচেতনতা বিষয়ক লিফলেট, দেয়ালে পোস্টার ও স্টিকার লাগানোসহ যাত্রী ও পথচারীদের এ বিষয়ে অবহিত করে পাথর ছোড়া বন্ধে তাদের সহযোগিতা চাওয়া হচ্ছে। ‘ট্রেনে সতর্ক থাকুন, নিরাপদে বাড়ি ফিরুন’ স্লোগানে ৯ জুন পর্যন্ত এই প্রচারণা চলবে।

এদিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে কর্মসূচি শুরুর সময় চট্টগ্রাম রেল স্টেশনের ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ বলেন, ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ থেকে রেহাই পাওয়া যাবে। আমরা যদি একটু সচেতন না হই কিংবা আমাদের পরিবার পরিজনকে সচেতন না করি, তবে প্রতিনিয়ত এ ধরনের দূর্ঘটনা ঘটবে।

সৈকত বিশ্বাংগ্রীর সভাপতিত্বে ও আবিদুর রহমান আসিফের সঞ্চালনায় এই কর্মসূচীতে অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর জিনাত সোহানা, ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি সোমেন কানুনগোসহ রেল-বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংগঠনের সভাপতি সোমেন কানুনগো জানান, আগামীতে শুধু পাথর নিক্ষেপ নয়, অসচেতনতার কারনে যাতে একটি যাত্রীও আহত ও ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন না হন, সেই লক্ষ্যে তারা প্রচারণা শুরু করেছেন। পুরো বাংলাদেশের সকল মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করার চেষ্টা করছেন তারা।

এ প্রচারাভিযানে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ রেলওয়ে সহযোগিতা দিচ্ছে।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.