সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আ.লীগ ৫০ টির বেশী আসন পাবে না : বাঁশখালীতে কর্ণেল (অব.) অলি

মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন করতে দেয়া হবে না এবং সকল দলের অংশ গ্রহনে নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ ৫০ টির বেশী আসন পাবে না বলে মন্তব্য করেছেন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ।

তিনি বাঁশখালী উপজেলায় শুক্রবার (১ জুন) বাঁশখালী আলাওল ডিগ্রী কলেজ হল রুমে/মাঠে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি উপজেলা ও পৌরসভা যৌথ উদ্যোগে এক ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ইফতার ও দোয়া মাহফিলে কর্নেল অলি আহমদ বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন। তুচ্ছ ও সাজানো মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে সাজা দেয়া হয়েছে। খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি না দেয়া হলে আগামী নির্বাচনে ২০ দল অংশগ্রহণ করবে না। আর নির্বাচন করতেও দেয়া হবে না।
এ ছাড়াও সারাদেশে আইনশৃংখলা বাহিনীর সঙ্গে কথিত মাদকব্যবসায়ীদের ক্রসফায়ার নিয়ে তিনি বলেন, ক্রসফায়ারের নামে কিছু গরিব মাদক বহনকারীকে হত্যা করা হচ্ছে।
এদের উদ্দেশ্য হলো মাদকের গডফাদারদের আড়াল করা। তিনি বলেন, ‘আমরাও মাদকের বিরুদ্ধে। আমাদের দাবি মাদকের মূল হোতাদের মূলোৎপাটন করা হোক।’দেশের মানুষ আজ ভালো নেই। চারদিকে শুধু গুম-খুন। দিন শুরু হয় খুনের খবর দিয়ে। ঘরে ঘরে গুম-খুনের আতঙ্ক বিরাজ করছে। এর থেকে মুক্তি পেতে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ বাস্তবায়ন করতে হবে।গতকাল ইয়াবা চোরাকারবারী এক এমপি কে সরকার রাতের আধারে বিদেশে পাটিয়ে দিয়েছে, অথচ নিরপরাধ অনেক সরকার ক্রসফায়ার দিয়ে হত্যা করেছে।

তিনি আরো বলেন,শুধু কালভার্ট, রাস্তা আর সেতুর নামে উন্নয়ন করলেই জনগনের মনে স্থান করে নেয়া যায় না। জনগনের মৌলিক অধিকার, কথা বলার অধিকার, ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে উন্নয়ন করলেও জনগনের মনে জায়গা করে নেয়া যায় না। মুক্তি যুদ্ধের চেতনা গণতান্ত্রিক অধিকার জনগনকে ফিরিয়ে দিতে হবে। একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলে চূড়ান্ত লক্ষ হচ্ছে নির্বাচন। এলডিপিও তার ব্যাতিক্রম নয়। দেশে প্রকৃত গণতন্ত্র ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করতে হলে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমেই একটি গ্রহনযোগ্য ও অংশগ্রহন মূলক নির্বাচন আদায় করতে হবে।

অলি আহমেদ সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, আ.লীগের মনে রাখতে হবে ক্ষমতা কারো জন্যই চিরস্থায়ী নয়। অবৈধ ভাবে জোর করে ক্ষমতা যত বেশী আকড়ে থাকবেন, পতন তত বেশী ভয়াবহ হবে। ইতিহাস এটাই প্রমান করে।

তিনি বাঁশখালী বাসীর উদ্দ্যেশ্য বলেন,আমি যোগাযোগ মন্ত্রী থাকা অবস্হায় বাঁশখালী তৎকালীন এমপি মরহুম সোলতানুল কবির চৌধুরীর মাধ্যমে বাঁশখালীর সমস্ত উন্নয়ন করেছি, আগামী দিনে বাঁশখালী থেকে এলডিপির প্রার্থী হিসেবে এডভোকেট কপিল উদ্দীন চৌধুরী নির্বাচন করবে।

বাঁশখালী পৌরসভা এলডিপির সভাপতি আলহাজ্ব আনিসুর রহমান সঞ্চালনায় ও বাঁশখালী উপজেলা এলডিপির সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান আবদুস সবুর চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দলের চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী ড. কর্ণেল অলি আহমদ বীরবিক্রম।উক্ত ইফতার প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, এলডিপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও সাবেক পিপি এ্যাডভোকেট কফিল উদ্দিন চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্হিত থেকে বক্তব্য প্রদান করেন, এলডিপির কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি চট্টগ্রাম উত্তর জেলা সভাপতি সাবেক এমপি নুরুল আলম তালুকদার, শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সিনিয়ার সহ-সভাপতি এম ইয়াকুব আলী,সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউল হক চৌধুরী (বাবুল),এ.জি এম শাহাজাহান,দক্ষিন জেলা সাধারন সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া (শিমূল),উত্তর জেলা সাধারন সম্পাদক এস.এম নিজাম উদ্দীন,চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ন-সম্পাদক ও সাবেক পৌর-মেয়র আলহাজ্ব কামরুল ইসলাম হোসাইনী, বাঁশখালী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও বৈলছড়ি ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ইব্রাহীম খলিল,বাঁশখালী উপজেলা সাধারন সম্পাদক এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী,দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক লায়ন নাছির উদ্দীন,চন্দনাইশ এলডিপির সাধারন সম্পাদক আকতারুর আলম,এলডিপি নেতা জামাল উদ্দীন চৌধুরী প্রমূখ।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.