আজ মহান মে দিবস

১ মে, আজ মহান মে দিবস । বিশ্বের শ্রমজীবী মানুষের দীর্ঘ শোষণ বঞ্চনার বিপরীতে ন্যায্য দাবী আদায় , শ্রম ঘন্টা নির্ধারণ , শ্রমিকদের ঐক্য ও সংহতির প্রতীকী দিন । ১৮৮৬ সালের এই দিনে আমেরিকার শিকাগো শহরে হে মার্কেটে শ্রমিকদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশে সরকার ও মালিক পক্ষের গুলিবর্ষণ ও হত্যার এই দিবস কে বিশ্বের কোটি কোটি শ্রমিক জনতা যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান মে দিবস হিসেবে পালন করে আসছে । শ্রমিকদের ঘামে ও রক্তের প্রতি সম্মান জানিয়ে ১৮৯০ সাল হতে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে মে দিবস পালিত হয়ে আসছে , মে দিবস সরকারী ছুটির দিন ।। বাংলাদেশে মে দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয় । এবারের মে দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় :

” মালিক শ্রমিক গড়ব দেশ
এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ ”

বাংলাদেশে মে দিবসের গুরুত্ব ও তাৎপর্য্য বেশী । শ্রমিকদের স্ব অধিকার ও ন্যায্য পাওনা সম্পর্কে বিরাট একটা শ্রেণী অবগত নয় , ( শ্রদ্ধা জানিয়ে কোন শ্রেণী তা উল্লেখ করছি না ) ফলে মালিক পক্ষের শোষণ বঞ্চনা হতে মুক্ত নয় তারা , বিশেষ করে কৃষক ও যে গার্মেন্টস শিল্পের জন্য বাংলাদেশের অর্থনীতি বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে যাচ্ছে সেই কৃষক শ্রমিকরা তাদের ন্যায্য পাওনা কতটুকু পাচ্ছে ? এক সময় দিনরাত হাড়ভাঙ্গা শ্রম দিয়ে গার্মেন্টস শ্রমিকরা মাত্র ২/৩ হাজার টাকা বেতন পেত , শ্রম ঘন্টার কোন হিসাব ছিল না ! সেই দিন এখন নেই , যদিও ন্যুনতম মজুরী নির্ধারিত হয়েছে তা পর্যাপ্ত নয় । শ্রমিকদের সন্তানদের জন্য ডে কেয়ার সেন্টার হচ্ছে যা আশার কথা ! বিশ্বের নামী দামী ব্র্যান্ড ও ক্রেতা ভোক্তারা চাপ দিচ্ছে শ্রম মান উন্নয়ন ও পরিবেশের জন্য ।। নামকরা ব্রান্ডের কলার উল্টিয়ে সাইজ দেখতে গিয়ে যখন দেখি ”মেইড ইন বাংলাদেশ ” গর্বে বুক ভরে যায় ।। আমি নিজেও একজন খেটে খাওয়া শ্রমিক , ব্রিটেনে লেবার পার্টির সমর্থক । মহান মে দিবসের প্রত্যাশা ; বাংলাদেশের শ্রমজীবী কৃষক তাদের কৃষিপণ্যের ন্যায্য মূল্য পাবে , শিশু শ্রম চিরতরে বন্ধ হবে , শ্রমিক মালিক পক্ষ ন্যায় সঙ্গত দাবী ও অধিকার সম্পর্কে সচেতন হয়ে দেশ গঠনে ভূমিকা রাখবে। এগিয়ে যাক আমাদের প্রিয় বাংলাদেশ ।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.