বাঁশখালীর ৩টিসহ ৪২ উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামে

বিটি ডেস্কঃ বাঁশখালীর তিনটিসহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৪২ উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে আজ বুধবার সকালে চট্টগ্রামে পৌঁছেছেন। বিমান বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ উড়োজাহাজে করে তিনি আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রামের নেভাল একাডেমিতে পৌঁছান। সেখানে নৌবাহিনির অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন। এরপর বিকেল তিনটার দিকে তিনি পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে চট্টগ্রাম দক্ষিণজেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় ভাষণ দেবেন। এর আগে চট্টগ্রামবাসীর জন্য তার উপহার স্বরূপ ২৮টি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিস্থাপন ও ১৪টির উদ্বোধন করবেন। দিনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিএনএ এবং ঈসা খাঁন প্যারেড গ্রাউন্ড বিএন ডক ইয়ার্ডকে ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড (জাতীয় পতাকা) প্রদান এবং বঙ্গবন্ধু কমপ্লেক্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ অন্যান্য কর্মসূচিতে যোগদান করবেন। যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন: মুরাদপুর ২নং গেইট এবং জিইসি মোড় জংশনে ফ্লাইওভার নির্মাণ (আখতারুজ্জামান চৌধুরী ফ্লাইওভার); চট্টগ্রাম জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমপ্লেক্স ভবন; কালুরঘাট-মনসারটেক জাতীয় মহাসড়কে (এন-১০৭) ৮ কি.মি. এ ৮১.৯৮ মি. দীর্ঘ পিসি গার্ডার সেতু (মিলিটারি সেতু); পটিয়া-চন্দনাইশ-বৈলতলী সড়কের (জেড-১০৩৯) ১৭তম কি.মি. এ ৩৪৮.১২ মিটার দীর্ঘ খোদারহাট সেতু; বাংলাদেশ মহিলা সমিতি স্কুল এন্ড কলেজ, কোতোয়ালি, চট্টগ্রাম, আইসিটি সুবিধাসহ ৫তলা একাডেমিক ভবন; হাজেরা তজু ডিগ্রি কলেজ, চান্দগাঁও, চট্টগ্রাম, আইসিটি সুবিধাসহ ৫তলা একাডেমিক ভবন; খলিল মীর ডিগ্রি কলেজ, পটিয়া, চট্টগ্রাম, আইসিটি সুবিধাসহ ৪তলা একাডেমিক ভবন; পশ্চিম বাঁশখালী উপকুলীয় ডিগ্রি কলেজ, বাঁশখালী, চট্টগ্রাম, আইসিটি সুবিধাসহ ৪তলা একাডেমিক ভবন; হেয়াকো বনানী কলেজ, ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম, আইসিটি সুবিধাসহ ৪তলা একাডেমিক ভবন; রাঙ্গুনিয়া মহিলা কলেজ, রাঙ্গুনিয়া, চট্টগ্রাম, আইসিটি সুবিধাসহ ৪তলা একাডেমিক ভবন; প্রফেসর কামাল উদ্দীন চৌধুরী কলেজ, মিরসরাই, চট্টগ্রাম, আইসিটি সুবিধাসহ ৪তলা একাডেমিক ভবন; নাজিরহাট মাইজভান্ডার সড়ক; শেখ রাসেল ভাস্কর্য ও শেখ রাসেল মঞ্চ, দক্ষিণভূর্ষি, পটিয়া, চট্টগ্রাম।ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন: চট্টগ্রাম শহরে লালখান বাজার হতে শাহ আমানত বিমানবন্দর পর্যন্ত এলিভেটেডে এক্সপ্রসেওয়ে নির্মাণ; কর্ণফুলী নদীর তীর বরাবর কালুরঘাট সেতু হতে চাক্তাই খাল পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ; চট্টগ্রাম শহররে জলাবদ্ধতা নিরসনকল্পে খাল পুনঃখনন সম্প্রসারণ, সংস্কার ও উন্নয়ন; চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া ও লোহাগাড়া উপজলোর সাঙ্গু ও ডলু নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্প; কর্ণফুলী নদীর সদরঘাট হতে বাঁকলিয়ার চর পর্যন্ত ড্রেজিং-এর মাধ্যমে নাব্যতা বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন উপকেন্দ্র নির্মাণেরও উদ্বোধন হবে।চট্টগ্রাম জেলার জরাজীর্ণ ও সংকীর্ণ কালারপোল-ওহিদিয়া সেতুর স্থলে ১৮০ মিটার সেতু নির্মাণ;
কেরানীহাট-সাতকানিয়া-গুনাগরী জেলা মহাসড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন; পটিয়া-আনোয়ারা-বাঁশখালী টইটং আঞ্চলিক মহাসড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন; বড়তাকিয়া (আবু তোরাব) থেকে মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল সংযোগ সড়ক; বারৈয়ারহাট (চট্টগ্রাম জোন) হেঁয়াকো-নারায়নহাট-ফটিকছড়ি আঞ্চলিক মহাসড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন; পটিয়া উপজলোর রাজঘাটা শ্রীমাই খালের উপর সেতু; ফটিকছড়ি উপজলোর নাজিরহাট-কাজিরহাট সড়কে খালের উপর ৫৪ মিটার সেতু নির্মাণেরও ভিত্তি স্থাপন করা হবে।পটিয়া পিটিআই এর একাডেমিক ভবন; সীতাকুণ্ড টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ডবলমুরিংয়ে আগ্রাবাদ মহিলা কলেজ ও পোস্তারপাড় আছমা খাতুন সিটি করপোরেশন মহিলা কলেটে পাঁচতলা একাডেমিক ভবন নির্মাণ; খুলশীতে সরকারি মহিলা কলেজে ১০০শয্যা ছাত্রী নিবাসের নির্মাণ কাজেরও ভিত্তি স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী।বাকি প্রকল্পগুলো হলো চট্টগ্রাম মুসলিম ইনস্টিটিউট সাংস্কৃতিক কমপ্লক্সে স্থাপন; পটিয়া পৌর মাল্টিপারপাস কিচেন মার্কেট নির্মাণ; হর্টিকালচার সেন্টার এবং পটিয়ায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.