বাঁশখালীর আরও দুই কৃতি লেখকের বই প্রকাশিত

তাফহীমুল ইসলাম (বাঁশখালী টাইমস): প্রতিবছরের মতো এবারও রাজধানী ঢাকায় শুরু হয়েছে অমর একুশে বইমেলা-২০১৮। বইমেলাকে উপলক্ষ করে দেশের খ্যাতনামা কবি, সাহিত্যিকরা বের করেছেন তাদের রচিত বই। সেই খ্যাতনামা কবি, সাহিত্যিকদের সাথে প্রকাশিত হয়েছে আমাদের জন্মভূমি বাঁশখালীর কয়েকজন কৃতি সন্তানের বই। যাদের মধ্যে কারো বই উপন্যাস, কারো বই কবিতা, কারো বই গল্পের। তাদের বই প্রকাশিত হওয়ার খবর আমাদের জন্য অনেক বেশি আনন্দের, খুশির। তাদের কষ্টের ফসল বইগুলো আমাদের কিনে পড়ে দেখা দরকার। কেননা- তাদের প্রায় সবার বইয়ে উঠে এসেছে আমাদের বাঁশখালীর সৌন্দর্যময় প্রাকৃতিক দৃর্শ্যের কথা। আসুন জেনে নিই- এবারের বইমেলায় বাঁশখালীর আরো দুজন কৃতি লেখকের প্রকাশিত সম্পর্কে এবং তা কোথায় পাওয়া যাচ্ছে।

সাঈদুল আরেফীন: দীর্ঘদিন ধরে লেখালেখি করে আসছেন লেখক সাঈদুল আরেফীন। বাড়ি বাঁশখালীর জলদী। বহু আগে থেকে সমাজ উন্নয়নমূলক কাজের সাথে জড়িত। শত ব্যস্ততার মাঝেও লেখালেখিকে সন্তানের মতো আগলে রেখেছেন এই গুণী লেখক।

একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৮ এ এই লেখকের দ্বিতীয় কিশোর গল্পগ্রন্থ ‘ একাত্তরে দুই কিশোর’ প্রকাশিত হয়েছে অক্ষরবৃত্ত প্রকাশন থেকে।

নগরীর মুসলিম হল প্রাঙ্গণে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে শুরু হওয়া বইমেলায় ‘কথন’, ‘অক্ষরবৃত্ত’, ’প্রজ্ঞালোক প্রকাশনী ও শব্দশিল্প প্রকাশনে পাওয়া যাবে সদ্য প্রকাশিত দ্বিতীয় কিশোর গল্পগ্রন্থ ‘ একাত্তরে দুই কিশোর’। সঙ্গে তাঁর অন্যান্য গ্রন্থও পাওয়া যাবে।

 

পলাশ দেব: পলাশ দেব। বাড়ি বাঁশখালীর বাণীগ্রামে। দীর্ঘদিন ধরে লেখালেখি করে আসছেন। কবিতা লেখেন। অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৮ এ তার ‘পোড়া চাঁদ’ নামে একটি উপন্যাস প্রকাশিত হয়েছে।
‘পোড়া চাঁদ’ উপন্যাসটি পাওয়া যাচ্ছে অমর একুশে বই মেলা ২০১৮, মুক্তচিন্তা প্রকাশনীর স্টলে।
স্টল নং ৪৪৪-৪৪৫, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, ঢাকা।

বই বিতান লাইব্রেরী, কলেজ রোড, গুণাগরী, বাঁশখালী, চট্টগ্রাম।
লোকনাথ লাইব্রেরী, বাণীগ্রাম স্কুল গেইট, বাণীগ্রাম, বাঁশখালী, চট্টগ্রাম।
চট্টগ্রাম বইমেলায় পাওয়া যাবে শাঁখ প্রকাশনীর স্টলে।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.