ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে উৎসবমূখর পরিবেশে বাঁশখালীতে দুর্গাপূজা সম্পন্ন

মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের, বিশেষ প্রতিনিধি ( বাঁশখালী টাইমস): বাঁশখালীতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা সম্পন্ন হয়েছে।
ঢাক-ঢোল, কাসা ও বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত গ্রামের বড় বড় পুকুরে ও বঙ্গোপসাগরে হাজার হাজার দর্শনার্থীর উপস্থিতিতে প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়েছে।

এ বারের দূর্গা পূজায় বাঁশখালীর ১৪টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভা মিলে ৮২ টি প্রতিমা ও ৯৬ ব্যাক্তিগত পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ কঠোর ভাবে সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থাও দেওয়া হয়েছে।

সর্বমোট ১৭৮ টি শারদীয় দূর্গাপূজা আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।
প্রতি বৎসরের মত এবারেও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজার মহা অষ্টমী দিনে বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন ও ধর্মীয় নেতাদের সাথে মতবিনিময় করেছেন অর্থ ও পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের স্হায়ী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এমপি।

মতবিনিময়কালে তিনি বলেন, বর্তমান সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী। তিনি আরো বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি রক্ষায় সব ধর্মের, সব মতের মানুষকে ভূমিকা রাখতে হবে। কোনভাবে একে অন্যের প্রতি বা অন্য ধর্মের প্রতি বিরূপ মনোভাব প্রকাশ করা যাবে না। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে একটি অসাম্প্রদায়িক, সুখি, সমৃদ্ধ ও আধুনিক দেশ হিসেবে গড়ার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বাঁশখালীর মানুষ ঐতিহ্যগতভাবে অসাম্প্রদায়িক। মায়ানমারে যা হচ্ছে তা খুবই অমানবিক ও বর্বর। বাঁশখালীর মুসলিম-হিন্দু-বৌদ্ধ সবাই এর প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছে। আমাদের সবাইকে সম্প্রীতি বজায় রেখে কাজ করে যেতে হবে।

বৃহস্পতিবার রাতে বাঁশখালী ১৪ টি ইউনিয়ন ও পৌরসভার কেন্দ্রীয় কালি মন্দিরসহ বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন।
বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসাদুর রহমান মোল্লা ও থানা (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা ওসি আলমগীর হোসেনের বিচক্ষণতাই আইন শৃংখলা বাহিনী পূজা মন্ডল গুলোতে বিসর্জন পর্যন্ত কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করেন।
পরবর্তীতে তিনি বাঁশখালী উপজেলার পুকুরিয়া, সাধনপুর, কালিপুর, বাহারচরা, বৈলছড়ী, কাথরিয়া, সরল, জলদী, শীলকূপ, চাম্বল, পুঁইছড়ী, শেখেরলীল সহ মোট ১২টি ইউনিয়নের পূজা মন্ডল গুলো পরিদর্শন করেছেন।

এসময় তার সাথে ছিলেন, বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী মো. মাসুদুর রহমান মোল্লা, থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসেন, কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা সাইফুউদ্দীন আহমেদ রবি, বাঁশখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল গফুর, উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক সরোয়ার কামাল, দপ্তর সম্পাদক শ্যামল কান্তি দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাধনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দীন চৌধুরী খোকা, উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি রেহেনা আক্তার কাজমী, বাঁশখালী আইনজীবি সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও কালীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এড. আ.ন.ম শাহাদত আলম, সরল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রশিদ আহমদ,শেখেরখীল ইউপির চেয়ারম্যান মোহাঃ ইয়াছিন,চাম্বল ইউপির চেয়ারম্যান মুজিবুল হক সিকদার,পুইছুড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মুজিবুল হক চৌধুরী,বাঁশখালী উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাছুদুর রহমান( মাকছুদ), উপজেলা পূজা উযাপন পরিষদের সভাপতি প্রদীপ গুহ,যুবলীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ,সাধারন সম্পাদক রাকেশ দাশ গুপ্ত সহ ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

অপর দিকে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে সাবেক বন পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব জাফরুল ইসলাম চৌধুরী বাঁশখালীর বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন। এসময় তার সাথে ছিলেন,দক্ষিণ জেলা বিএনপি নেতা ও সাবেক চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান চৌধুরী,বাঁশখালী পৌরসভা বিএনপির সভাপতি রাসেল ইকবাল মিয়া,দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের শহিদুল ইসলাম শহিদ প্রমূখ।

একই সাথে পৃথক পৃথক ভাবে দক্ষিন জেলা আওয়ামীলীর শ্রম বিষয়ক সম্পাদক খোরশেদ আলম, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সিংহপুরুষ সাবেক সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা মরহুম এডভোকেট সুলতানুল কবির চৌধুরীর সুযোগ্য পুত্র বাঁশখালীর আর এক তরুন রাজনীতিব দক্ষিণ জেলা সেচ্চসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক চৌধুরী মুহাম্মদ গালিব ও তার চাচা পুইছুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা সোলতানুল গনী চৌধুরী (লেদু মিয়া),বাঁশখালী পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব শেখ সেলিমুল হক চৌধুরী,সাবেক মেয়র শেখ ফখরুদ্দিন চৌধুরী,বাঁশখালী পৌরসভা বিএনপির আহবায়ক ও সাবেক মেয়র আলহাজ্ব কামরুল ইসলাম হোসাইনী বাঁশখালী বিভিন্ন পূজামন্ডল পরিদর্শন করেন।

অন্য দিকে মাষ্টার নজির আহমদ ট্রাস্টের উদ্যোগে বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বাঁশখালী উপজেলার ৮২টি পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন করে সংশ্লিষ্ট পূজা মণ্ডপের দায়িত্বরত কমিটির কর্মকর্তাদের হাতে মাস্টার নজির আহমদ ট্রাস্টের সদস্য ও স্মার্ট গ্রুপের পরিচালক আজিজুর রহমান এবং চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের অর্থ সম্পাদক ও দৈনিক পূর্বদেশ পত্রিকার সম্পাদক আলহাজ্ব মুজিবুর রহমান সিআইপির নেতৃত্বে নগদ আর্থিক অনুদান তুলে দেওয়া হয়।
পূজা মণ্ডপে আর্থিক অনুদান প্রদানকালে দক্ষিণ জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউল করিম আতিক, বাঁশখালী উপজেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ চৌধুরী, বাবলু কুমার দে, সাংবাদিক রাহুল দাশ নয়ন, রাজীব গুহ, বিশ্বজিৎ দেব, সাইদুর রহমান জিহান, ডা. কমল দেব, জাকের আহমদ প্রমুখ সহ আরো বহু রাজনৈতিক নেত্রীবৃন্দ শারদীয় দূর্গাপুজা পরিদর্শন করেন।

বাঁশখালী পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রদীপ গুহ, গত ২৬ সেপ্টেম্বর মহাষষ্ঠীর মধ্যদিয়ে শুরু হওয়া পাঁচ দিন ব্যাপী শারদীয় দূর্গা উৎসবের প্রতিটি মন্ডপে আইন শৃংখলা বাহিনীর পাশাপাশি নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা রক্ষায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে উৎসব পালনের লক্ষ্যে প্রশাসনের ভূমিকা প্রশংসনীয়।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.