শিক্ষাবিস্তারের নতুন দিগন্তে মাস্টার নজির আহমদ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ

শাহাদাত কবির আবতাহী: মাস্টার নজির আহমদ বিশ্ববিদ্যায়ল কলেজ দক্ষিণ চট্টগ্রামের তথা বাঁশখালীর একটি অন্যতম শিক্ষ প্রতিষ্ঠান হিসেবে সর্বমহলের কাছে পরিচিতি লাভ করেছে।

২০০৭ সালে মাস্টার নজির আহমদ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ প্রতিষ্ঠার কার্যক্রম অনানুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় এবং ২০০৮-২০০৯ শিক্ষাবর্ষে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড চট্টগ্রাম কর্তৃক ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির অনুমতি লাভ করে। ইতোপূর্বে জনসাধারণের সার্বিক সহযোগিতায় বাঁশখালী উপজেলায় কয়েকটি কলেজ প্রতিষ্ঠা লাভ করলেও বাঁশখালীর অনগ্রসর ও অবহেলিত দক্ষিণ বাঁশখালীতে কোনো উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছিল না। যদিও দক্ষিণ বাঁশখালীতে অনেক জমিদার ও ধনাঢ্য ব্যক্তি ছিল।

বঞ্চিত, অবেহেলিত দক্ষিণ বাঁশখালীর জনসাধারণের জীবনে যখন একটি উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বপ্নের দীর্ঘশ্বাস দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হতে থাকে, তখনই মাস্টার নজির আহমদ তথা তাঁর পরিবার দক্ষিণ বাঁশখালীতে মাস্টার নজির আহমদ ডিগ্রী কলেজ প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসেন। মাস্টার নজির আহমদ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, মরহুম মাস্টার নজির আহমদ তথা তাঁর পরিবারের একক অবদান। তাঁর একাগ্র সাধনা, নিরলস প্রচেষ্টা ও অার্থিক অনুদানে বাঁশখালীতে এই পরিবারের পক্ষে প্রথম কলেজ প্রতিষ্ঠা সম্ভব হয়। মরহুম মাস্টার “নজির আহমদ” স্বপ্ন দেখতেন, তিনি বলতেন, “অনুন্নত ও অনগ্রসর অত্র এলাকাকে উন্নতির দ্বার প্রান্তে উপনীত করতে হলে উচ্চ শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই।” তাই তিনি এলাকায় একটি উচ্চ শিক্ষার প্রতিষ্ঠান স্থাপনের স্বপ্ন দোখতেন। পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন, এলাকার জনগণের সময়ের দাবির প্রতি সম্মান ইত্যাদি বিবেচনা করে আমাদের পরিবার, অনুন্নত এই এলাকায় একটি কলেজ প্রতিষ্ঠার সম্মিলিত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে; যা আজ দক্ষিণ চট্টগ্রামের জনপ্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাস্টার নজির আহমদ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ নামে সুপরিচিত।

কলেজ প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে মরহুম মাস্টার নজির আহমদ সাহেব এর সুযোগ্য পুত্র অালহাজ্ব মুজিবুর রহমান (সিআইপি) এর নিরলস প্রচেষ্টা শিক্ষা অনুরাগী হিসেবে ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লিখা থাকবে। কলেজের নামকরণসহ উৎসাহ উদ্দীপনার ক্ষেত্রে অধ্যক্ষ মোঃ আবদুল কাদের ও অধ্যক্ষ হোছাইন অাহমদ এর নাম স্মরণযোগ্য।
২০১০ সালে অনুষ্ঠিতব্য উচ্চ মাধ্যমিক পরিক্ষায় প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করে ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের প্রতিভার উজ্জ্বল স্বাক্ষর রাখে। ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে কলেজটি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃক স্নাতক (পাস) ও ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে অনার্স কোর্স চালুর করার অনুমতি লাভ করে। বর্তমানে কলেজটি একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ এবং কলেজের যাবতীয় কার্যক্রম মাস্টার নজির আহমদ পরিবার কর্তৃক পরিচালিত হবে। বর্তমানে মাস্টার নজির আহমদ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ৭০০ জন এবং ৪৭ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা ও কর্মচারী কর্মরত আছেন।

প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে কলেজের পাশের হার অত্যন্ত প্রশংশনীয়।

লেখক: তরুণ সাংবাদিক

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.