বাঁশখালীতে মানবতার সেবায় ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংক

শিব্বির আহমদ রানা, বিশেষ প্রতিনিধি, বাঁশখালী টাইমস: “মানুষ মানুষের জন্য জীবন জীবনের জন্য, রক্ত দিন জীবন বাঁচান” এই স্লোগানকে সামনে রেখে বাঁশখালী তথা সারাদেশ ব্যাপী কাজ করে যাচ্ছে ‘ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংক’। ডেসটিনির ৪৫ লাখ মানুষের স্বপ্নদ্রষ্টা কোম্পানীর এমডি ও চেয়ারম্যান আজ যেখানে বন্দী সেখানে মানবসেবায় ডেসটিনির কার্যক্রম চালু রাখা সত্যিকার অর্থে অসম্ভব একটি পদক্ষেপ। মানুষ মানুষের জন্য এ কথা ভুলে যাননি ডেসটিনির কর্ণধার মো. রফিকুল আমীন ও চেয়াম্যান মো. হোসাইন। এই মানুষ গুলো জেলের অন্ধকার কারাগারে বসে মানবকল্যাণে গঠন করেন, ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংক নামক মহৎ সেবা কার্যক্রম। ডেসটিনি বিরোধী কিছু কুচক্রদের অপপ্রচার আর হলুদ মিডিয়ার মিথ্যচারের শিকার আজ ডেসটিনির ৪৫ লাখ পরিবার। তার মধ্যে দুদকের তদন্তবিহীন মিথ্যা মামলার জালে ডেসটিনির সাথে জড়িত লক্ষ লক্ষ যুবক যুবতির রুজি-রোজগারের পথ যেখানে বন্ধ সেখানে মানবকল্যাণে এগিয়ে আসা ডেসটিনির সৈনিকদের এই পদক্ষেপ বিশ্ব ইতিহাসে কালের স্বাক্ষী হয়ে লিপিবদ্ধ থাকবে।

সম্প্রতি মানবকল্যাণে এগিয়ে চলা ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংকের কর্মকান্ড নীরবে নিভৃতে চালিয়ে যাচ্ছেন এর সাথে জড়িত ডেসটিনি স্যোসাল মিডিয়া ফোরাম-গ্রীণ’র নিবেদিত সদস্যরা। ইতোমধ্যে বাঁশখালী ডেসটিনি সোস্যাল মিডিয়া ফোরাম গ্রীণের সদস্যরা মুমূর্ষু রোগীদের পাশে স্বেচ্ছায় রক্ত দান করে ‘মানবতার পাশে ডেসটিনি’র সেবা কার্যক্রমকে সারা দেশের ন্যায় অব্যাহত রাখছে। ২৫ সেপ্টেম্বর, সোমবার ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংক এর ব্যানারে ডেসটিনির ডিষ্ট্রিবিউটর, বাঁশখালী ডিএসএমএফ গ্রীণের যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. আবুল কাশেম এর স্ত্রী মমতাজ বেগম শিমুল ও বাঁশখালী ডিএসএমএফ গ্রীণের সদস্যা মনজুরা বেগম চট্টগ্রাম আগ্রাবাদ শিশু হাসপাতালে চিকিৎসারত টিউমার ক্যান্সারে আক্রান্ত ছেনুয়ারা বেগম (৪৬) নামের একজন মুমূর্ষু রোগীকে রক্ত দিয়ে তার জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসেন। তারা দু’জনই “Destiny Blood Bank” –এর সদস্য। সারা দেশের ন্যায় ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংক এর ব্যানারে প্রতি মাসে অসংখ্য মুমূর্ষু রোগীকে রক্ত দিয়ে সহায়তা করে যাচ্ছে বাঁশখালী ডেসটিনি সোস্যাল মিডিয়া ফোরাম গ্রীণের সদস্যরা এমনটি জানান ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংকের বিশেষ প্রতিনিধি রঞ্জিত কান্তি দেব দাশ। তিনি বলেন, আমরা বাঁশখালীতে ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংকের আওতায় অসংখ্য রোগীদের স্বেচ্ছায় রক্ত দান করেছি। এই নিয়ে আমাদের একটা বিশেষ টিম কাজ করে যাচ্ছে।

বাঁশখালী শেখেরখীল ইউনিয়নের ছেনুয়ারা বেগম নামের এক মুমূর্ষু রোগীর জন্য জরুরী ভিত্তিতে বি’ পজেটিভ রক্তের প্রয়োজন এই খবরটি ডেসটিনি সোস্যাল মিডিয়া ফোরামকে অবগত করা হলে ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংকের এই দুজন সদস্যা এগিয়ে আসেন মানবতার সেবায়। রক্ত দেওয়ার পর তারা বলেন- “আমরা খুব গর্ব বোধ করছি রক্ত দিতে পেরে। আসলে মানুষের পাশে দাঁড়তে পারলে নিজেকে অনেক দায়িত্ববান মনে হয়। সবার উদ্দেশ্যে বলব একজন সুস্থ সবল মানুষের প্রতি ৩ মাস অন্তর অন্তর রক্ত দেওয়া উচিত, এতে শারীরিক কোন সমস্যা হয় না বরং বেঁচে যায় একটি জীবন। মমতাজ বেগম বলেন, ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংকের সদস্য হিসেবে এই পর্যন্ত দু’বার স্বেচ্ছায় রক্ত দিয়েছি। এমনকি আমার স্বামীও রক্তদানে নিজেকে উৎসর্গ করে আসছে।

ক্যান্সার আক্রান্ত রোগী ছেনুয়ারা বেগম এর স্বামী সুফি আলম জানান, আগামীকাল আমার স্ত্রীর অপারেশন হওয়ার কথা। তাই তার রক্তের প্রয়োজন। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ডেসটিনি ব্লাড ব্যাংকের স্বেচ্ছায় রক্তদান সম্পর্কে জানতে পেরে বাঁশখালীতে দায়িত্বরত প্রতিনিধিকে বিষয়টি জানালে তারা দ্রুত রক্তের ব্যবস্থা করে দেন। ছেনুয়ারা বেগম ডেসটিনি গ্রুফের এমডি ও চেয়ারম্যান এর মানব হিতৈষী কর্মকান্ডের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.