উত্তরাঞ্চলের বন্যায় প্রাণহানি ১০৭, মানবিক সংকট চরমে

বাঁশখালী টাইমস: দেশের উত্তরাঞ্চলের পর এবার মধ্যাঞ্চলেও বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। এ পর্যন্ত ১০৭ জনের প্রাণহানি ও ৩ লাখ হেক্টরের বেশি জমির ফসল পানিতে ভেসে গেছে।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্ককরণ কেন্দ্রের শঙ্কার পর স্মরণকালের অন্যতম ভয়াবহ এবারের বন্যায় ডুবতে বসেছে দেশের এক তৃতীয়াংশ অঞ্চল। উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকার পর ডুবছে দেশের মধ্যাঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকা। এরইমধ্যে মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, রাজবাড়ী ও টাঙ্গাইল জেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। এছাড়াও মাদারীপুর, শরীয়তপুর, চাঁদপুরসহ মধ্যাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় বন্যার আশঙ্কা রয়েছে।
বন্যা সতর্ককরণ কেন্দ্র বলছে, বুড়িগঙ্গা, তুরাগ, বালু, শীতলক্ষ্যা, ধলেশ্বরী ও কালীগঙ্গা নদীর পানিবৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। এখন পর্যন্ত বিপদসীমার নিচে থাকা এসব নদীর পানি গত ২৪ ঘন্টায় ৩০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। এই বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে আগামী দুই-এক দিনের মধ্যে বিপদসীমার উপরে গেলে প্লাবিত হতে পারে নতুন এলাকা।

১৬ আগস্ট বুধবার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. গোলাম মোস্তফা জানিয়েছেন, বন্যায় এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৩৭ জনের। ইতোমধ্যে পানিতে ডুবে গেছে দেশের ২১টি জেলার অন্তত ৭০ উপজেলার তিন লাখ হেক্টরের বেশি জমির ফসল। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে প্রায় ৩৩ লাখ মানুষ।

তবে একই দিন সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন, এ পর্যন্ত বন্যায় ১০৭ জন মারা গেছেন।

উত্তরাঞ্চলের নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে নতুন এলাকা প্লাবিত হতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্ককরণ কেন্দ্র।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.