BanshkhaliTimes

হামলা ও হুমকির প্রতিবাদে বাঁশখালীতে আ.লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

মু. মিজান বিন তাহের: বাঁশখালী ( Banshkhali ) পৌরসভা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগসহ পৌর কাউন্সিলরদের উদ্যোগে চট্টগ্রাম -১৬ বাঁশখালীর সংসদসদস্য আলহাজ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীকে প্রকাশ্যে হুমকি ও বিভিন্ন ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (৩১ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০ টা থেকে পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে পুরুষ কাউন্সিল এবং মহিলা কাউন্সিলরা নিজ নিজ ওয়ার্ড থেকে মিছিল সহকারে বাঁশখালী পৌরসভা ( Banshkhali Pourosova ) কার্যালয়ে জড়ো হয়। বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে বাঁশখালী পৌরসভা ( Banshkhali Pourosova ) কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে বাঁশখালী ( Banshkhali ) পিএবি প্রধান সড়ক থানা প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদের সামনে এসে প্রতিবাদ সমাবেশে যোগ দেন নেতাকর্মীরা।

বাঁশখালী পৌরসভা ( Banshkhali Pourosova ) আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক নীল কন্ঠ দাশের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন। এতে উপস্থিত থেকে আরো বক্তব্য রাখেন পৌরসভা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক তপন কান্তি দাশ, আওয়ামীলীগ নেতা আক্তার হোসেন, শেখ মাইনুদ্দীন চৌধুরী, মানিকুল আলম, এড. তোফাইল বিন হোসাইন, হামিদ উল্লাহ, মাহমুদুল ইসলাম, বাঁশখালী পৌরসভার ( Banshkhali Pourosova ) প্যানেল মেয়র-১ দেলোয়ার হোসেন, কাউন্সিলর তপন কান্তি বড়ুয়া, কাউন্সিলর জমশেদ আলম, মহিলা কাউন্সিলর রোজিয়া সোলতানা রোজি, মহিলা কাউন্সিলর রুজিয়া সোলতানা, কাউন্সিলর নজরুল কবির, কাউন্সিলর আব্দুর রহমান, কাউন্সিলর আজগর হোসেন, মহিলা কাউন্সিলর নার্গিস আক্তার, সাবেক কাউন্সিলর প্রণব কুমার দাশ, জাফর আহমদ, আক্তার হোসেন, নাছির উদ্দীন, গিয়াস কামাল, ফিরোজ শাহী মোঃ ইমন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, বিগত ২৭ জুলাই বাঁশখালী উপজেলার শেখেরখীলের লালজীবন গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ আলী আশরাফ মৃত্যুর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গার্ড অব অনার ছাড়াই দাফনের ঘটনা থেকে বেশ কয়েকটা মানববন্ধন মিছিল মিটিং হয়ে আসলেও চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে মুক্তিযুদ্ধের ব্যানারে উভয়পক্ষের কর্মসূচী পালন করতে গিয়ে পাল্টা-পাল্টি হামলার ঘটনাও ঘটে। উভয়পক্ষের লোকজন আহতও হয়। এ ঘটনায় বাঁশখালী পৌর মেয়র শেখ সেলিমুল হক চৌধুরী ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অধ্যাপক তাজুল ইসলামসহ ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলাও হয়।

প্রেসক্লাবের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সিরু বাঙালী নামের এক গেরিলা কমান্ডার এমপি মোস্তাফিজকে উদ্দেশ্য করে বলেন, মোস্তাফিজকে আমি গুলি করে মারব, মেরে শেখ হাসিনার কাছে নিয়ে যাব, দেখি আমাকে বাংলাদেশের কোন শক্তি বাঁধা দেয়! এমন হুমকি সামাজিক গণমাধ্যমে ও মিডিয়াতে ভাইরাল হয়।

একজন সংসদসদস্যকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্র লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, বাঁশখালী উপজেলা ( Banshkhali Pourosova ) আওয়ামীলীগের অভিবাববক ও সংসদসদস্য আলহাজ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী ও পৌরমেয়র আলহাজ শেখ সেলিমের বিরুদ্ধে জামায়াত-শিবিরের একটি সিন্ডিকেট ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। তারা বাঁশখালীর উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নসাৎ করতে উঠে পড়ে লেগেছে। আওয়ামীলীগের লেবাসধারী ওই জামায়াত শিবিরের সিন্ডিকেটের সদস্যদের চিহ্নিত করতে হবে। ওই জামায়াত শিবিরের সিন্ডিকেট বাঁশখালী ( Banshkhali ) আওয়ামীলীগের রাজনীতিকে কলুষিত করতে বিভিন্নভাবে চক্রান্ত শুরু করেছে।

বক্তারা আরো বলেন, সম্প্রতি একজন প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধাকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গার্ড অব অনার দিতে বিলম্ব হওয়াকে পুঁজি করে জামায়াত শিবিরের ঐ সিন্ডিকেটের সদস্যরা আওয়ামীলীগ সেজে প্রকৃত আওয়ামীলীগ ও বাঁশখালীর সংসদসদস্যের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। তারা বাঁশখালী পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিমুল হক চৌধুরীর ওপর ন্যাক্কারজনক হামলার ঘটনা ঘটিয়ে উল্টো সংসদসদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীকে ফাঁসানোর চেষ্টা চালাচ্ছে।

সমাবেশে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা অনতিবিলম্বে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি এবং সংসদসদস্য মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীকে প্রকাশ্যে হুমকির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এবং সাথে সাথে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে বাঁশখালী উপজেলা ( Banshkhali Upozilla ) আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের আহবান জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা শেষ করা হয়। এসব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে তৃণমূল নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানানো হয়।

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published.