BanshkhaliTimes

সাঙ্গুর ভাঙ্গন থেকে পুকুরিয়াকে বাঁচাতে এমপি মহোদয়ের প্রতি খোলাচিঠি

পুকুরিয়ার নেজাম উদ্দীনের খোলাচিঠি হুবহু তুলে ধরা হলে

বাঁশখালী উপজেলার ১নং পুকুরিয়া ইউনিয়ন কে রক্ষায় মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এম.পি. কে খোলা চিঠি।
মুহাম্মদ নেজাম উদ্দীন সুলতানী

১নং পুকুরিয়া, ৬নং ওয়ার্ডের স্থায়ী বাসিন্দা।

বিষয়ঃ সাঙ্গু নদীর ভাঙ্গনের হাত থেকে পশ্চিম পুকুরিয়া কে রক্ষা করা প্রসঙ্গে।

মাননীয় এমপি মহোদয় আপনি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে বাঁশখালীর শুরু শেষ যেভাবে উন্নয়নের চুঁয়া লেগেছে তা কারো অস্বীকার করার মত নয়,
আপনার তুলনায় শুধু আপনিই একমাত্র বাঁশখালীর উন্নয়ন মুখি অভিভাবক।
মাননীয় সাংসদ আপনি হয়তো জানেন, পুকুরিয়া একটি শান্তিপ্রিয় এলাকা। এই এলাকার মানুষের দীর্ঘ দিনের প্রাণের দাবি এই এলাকাটিকে ব্লক বাধেঁর মাধ্যমে যেন সাংঙ্গুরস্রোত ধারা থেকে রক্ষা পায়। এই ব্লক বাধের মাধ্যমে একদিকে সুযোগ হবে বিশাল ভূমিকে সাঙ্গুনদীর বুক থেকে জাগিয়ে তোলা।
যদিও পুরা বাঁশখালী জুড়ে বাধঁ হচ্ছে কিন্তু দূর্ভাগ্যবশত আমাদের ইউনিয়নের তৈলারদ্বীপ ব্রীজ থেকে পশ্চিম পুকুরিয়া সাইট টি সে বাধেঁর আওতায় নেই।
তা-ছাড়া প্রতিনিয়ত অবৈধ ভাবে উত্তোলন হচ্ছে বালু
বালু খেকোরা অসহায় মানুষের কান্না শুনতে পাচ্ছে না সাময়িক তাদের লাভের আশায়।
অথচ এই নদী ভাঙ্গন এলাকাতে স্কুল, মাদ্রাসা, মসজিদ, কবরস্থান সহ অসংখ্য বাড়িঘর বিলীন হয়ে বাঁশখালীর মানচিত্রের ম্যাপ সহ বদলে গেছে, এভাবে হয়তো আর ৪/৫ বচ্ছর পর পশ্চিম পুকুরিয়া নামক কোন জায়গা অবশিষ্ট থাকবেনা।
মানুষ তার নিজের বসবাসের জায়গা করার জন্য দিশেহারা হয়ে পাহাড় বন জঙ্গল কেটে দখল করেছে ভূমি(চা বাগান সংলগ্ন লঠমনি পাহার)। আর তাতে অপচয় হচ্ছে সবুজ বৃক্ষ আর হুমকিতে থাকে প্রাকৃতিক ভারসাম্য। কিন্তু সম্ভাবনার বিষয় হল সাগরের তলিয়ে যাওয়া ভূমিগুলোকে জাগ্রত করার দৃঢ় মানসিকতা নিয়ে এখানে বসবাস করছে প্রায় হাজারো হাজার মানুষ। যাদের অধিকাংশ জড়িত কৃষিকাজ, মৎস চাষ,দৈনিক খেটে-খাওয়া মানুষ, আর নানা ধরনের উৎপাদনমুখী কাজে।

মাননীয় এমপি মহোদয়,
এই ভাঙ্গন রোধে ইতিমধ্যে ৬নং ওয়ার্ড জনপ্রতিনিধি, ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব ফরিদ আহমদ Farid Ahmed একটি হতাশা হয়ে নিজের টাইমলাইনে পোষ্ট করেছেন ওনার পুরা ওয়ার্ডটাই সাঙ্গু নদীর তীরে এমনকি ওনার বাড়ি ও সে সাঙ্গু নদীর পারে তাই আপনার বিশ্বস্ত জনাব ফরিদ আহমদ মেম্বার কে নির্দেশ দেওয়া হলে আপনি সরেজমিনে না গিয়ে ও নিরপেক্ষ তত্ত্ব পাবেন ইনশাআল্লাহ।

মাননীয় এমপি মহোদয়,
নানানরকম অজুহাত দিয়ে প্রত্যেকটি জনপ্রতিনিধি গন মানুষের স্বপ্নটিকে দূরে সরিয়ে রেখেছে। নিজেদের হতাশার কথা যে কাউকে জানাবে হয়ত এমন কাউকে খুঁজে পায়নি। আপনিই সেই ব্যক্তি যে হতাশ হওয়া মানুষগুলোকে আশার আলো দেখাতে পারেন। তাই মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী আপনার একটি সুদৃষ্টি, আন্তরিকতা হতে পারে আপনার নির্বাচনী এলাকা ১নং পুকুরিয়ার অসহায় মানুষ কে রক্ষা করতে।
আমরা আশা করব এই বিষয় নিয়ে আপনি শীঘ্রই একটি উদ্যোগ গ্রহণ করবেন, আমরা শুনে আনন্দিত হতে পারব।

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published.