BanshkhaliTimes

সরলে সরকারি জায়গায় দোকান নির্মাণের অভিযোগ

BanshkhaliTimes

মিজান বিন তাহের: চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার সরল ইউনিয়নের সর্ব দক্ষিণ সীমান্তবর্তী জালিয়াখালী খালের ওয়াফদা স্লুইসগেইট সংলগ্ন স্থানে ফাউন্ডেশন বিশিষ্ট পাকা স্থাপনা নির্মাণ করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার অভিযোগ উঠেছে সরল ইউনিয়নের কাহারঘোনা এলাকার স্থানীয় প্রভাবশালী আহমদ উল্লাহর বিরুদ্ধে। জালিয়াখালী নতুনবাজার ওয়াফদা স্লুইস গেইটের পাশেই সরকারি জায়গার উপর স্থাপনা নির্মাণ করছেন তিনি।

জালিয়াখালী খালে ওয়াফদা স্লুইসগেইট সংলগ্ন স্থানে প্রধান ফটক দখল করে স্থাপনা নির্মিত হলে বর্ষা মৌসুমে পার্শ্ববর্তী শিলকুপ ইউনিয়ন, পৌরসভার নিম্নাঞ্চল ও সরল ইউনিয়ন সহ বিভিন্ন এলাকার হাজারো একর জমির চাষাবাদ অনিশ্চিত ও গ্রামাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে। এ নিয়ে এলাকার কৃষক ও জনসাধারণের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। নির্মাণ কাজ শুরুর সংবাদ পেয়ে স্থানীয় সচেতন মহল বাঁধা দিলেও কোন রকম তোয়াক্কা না করে প্রভাব দেখিয়ে অবৈধভাবে সরকারী জায়গা দখল করে স্থাপনা নির্মাণ কাজ অব্যাহত রাখছে।

সরেজমিনে জানা যায়, প্রতি বর্ষা মৌসুমে বৃহত্তর শিলকূপ-জলদী উপরাঞ্চল পাহাড়ী ঢল ও বৃষ্টির পানিতে বন্যায় ব্যাপক ভাবে প্লাবিত হয়। যাতে প্রতি মৌসুমে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়। উপরাঞ্চলের বন্যা ও বৃষ্টির পানি যে স্থান দিয়ে বঙ্গোপসাগরে নেমে যায় সে স্লুইস গেইটের প্রবেশধারে স্থাপনা নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। যার কারণে কোন রকম এতদঞ্চলের মানুষ ও কৃষি সেক্টর সাময়িক ভাবে ক্ষয়-ক্ষতির শিকার হলেও উক্ত স্থান দিয়ে পানি নেমে যাওয়াতে দীর্ঘ মেয়াদী পানি বন্দী থেকে মুক্তি পায়। সম্প্রতি ওই ওয়াফদা জালিয়াখালী খালের স্লুইসগেইটের প্রবেশধার সংলগ্ন স্থানে সরকারি জায়গা দখল করে ওই এলাকার অর্থলোভী, ভূমিদস্যু জনসাধারণ ও কৃষক সমাজের দূর্ভোগের কথা চিন্তা না করে স্থাপনা নির্মাণ করেছে। তৎস্থানে স্থাপনা নির্মাণ করা হলে বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ী ঢলের পানি ও বৃষ্টির পানি নিচে নামতে বাঁধা সৃষ্টি করবে। যার কারণে পার্শ্ববর্তী শিলকূপ, পৌরসভার জলদী, সরল ইউনিয়নের হাজারো একর চাষাবাদের জমি এবং পার্শ্ববর্তী কাহারঘোনা, জালিয়াপাড়া, আস্করিয়া পাড়া, মনকিচরের আলী সিকদার পাড়া সহ বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হবে।

এলাকার সচেতন মহল ও কৃষক সমাজের দাবী উক্ত স্লুইসগেইট সংলগ্ন স্থানে ফাউন্ডেশন বিশিষ্ট স্থাপনা নির্মাণ হলে উপরাঞ্চলের পানি চলাচলে বাঁধার সৃষ্টি হবে। এতে এলাকাবাসী ও কৃষকদের অপুরনীয় ক্ষতির পাশাপাশি এলাকার ব্যাপক ক্ষতিসাধন থেকে বাঁচাতে সরেজমিনে তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট বিভাগের হস্তক্ষেপ কামনা করে। এই অবৈধ দখলের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে অন্যরাও পাউবোর জায়গা দখল করে স্থাপনা নির্মাণ শুরু করবে বলেও জানান তারা।

চট্টগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী প্রকাশন চাকমার সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সরকারি জায়গা দখল করে অবৈধভাবে স্থাপনা নির্মাণ করে জনপ্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারীর ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ বিষয়ে এলাকার চেয়ারম্যান ও প্রশাসনকে অবহিত করা হবে।

বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইদুজ্জামান চৌধুরী জানান, জালিয়াখালী ওয়াফদা স্লুইসগেইটের প্রবেশধার সংলগ্ন স্থানে অবৈধভাবে সরকারী জায়গা দখল করে স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের স্থাপনা নির্মাণের বিষয়ে জালিয়াখালী নতুন বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমবায় সমিতি ও এলাকাবাসীদের একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published.