সরকার ইসলামের খেদমত করে যাচ্ছে: এমপি মোস্তাফিজ

Spider-Security

মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের, বাঁশখালী টাইমস: বাঁশখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে দোয়া ও ইফতার মাহফিল বুধবার (১৭ মে) সন্ধ্যায় পৌরসদরের গ্রীণ পার্ক কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। বাঁশখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক চেয়ারম্যান মহিউদ্দীন চৌধুরী খোকার সঞ্চালনায় ও বাঁশখালী পৌরসভা মেয়র শেখ সেলিমুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এমপি।
এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা পরিষদ সদস্য শাহিদা আক্তার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আবদুল গফুর,বাঁশখালী উপজেলা পরিষদের নব নির্বাচিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি রেহেনা আক্তার কাজেমী, উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক শ্যামল কান্তি দাশ, সরল ইউপি চেয়ারম্যান রশিদ আহমদ চৌধুরী, বাঁশখালী থানা যুবলীগের সভাপতি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, কালীপুর ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আ ন ম শাহাদত আলম, চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইয়াছিন, চেয়ারম্যান কফিল উদ্দীন চৌধুরী, চেয়ারম্যান শাহজাহান, চেয়ারম্যান বদরুদ্দীন উদ্দীন চৌধুরী,।চেয়ারম্যান শাহজাহান আওয়ামীলীগ নেতা গাজী জাহেদ, আক্তার হোসেন, ইবনে আমিন, ভান্ডারী করিম, গন্ডামারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাস্টার শামসুল আলম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এম এ মালেক মানিক, বাহারছড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাক আলী চৌধুরী টিপু, পুইছড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবুর রহমান চৌধুরী, বাঁশখালী পৌরসভা যুবলীগের আহবায়ক হামিদ উল্লাহসহ আরো অনেকে।

ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, ইসলামের খেদমত করে যাচ্ছে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার। মাদরাসা শিক্ষাকে গুরুত্ব দিয়ে শেখ হাসিনা ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছেন। প্রত্যেক উপজেলায় মডেল মসজিদ নির্মান হচ্ছে। সরকার কওমী মাদরাসার ১ হাজার ও আলীয়া মাদরাসার ১ হাজার শিক্ষার্থীকে চাকুরী দিয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোরআন তেলোওয়াত ছাড়া বাসা থেকে বের হন না। তাছাড়া হাফেজ আলেমদের স্বার্থ সংরক্ষণে প্রধানমন্ত্রী সর্বদা সচেষ্ট। তিনিই একমাত্র প্রধানমন্ত্রী যার সরকার আমলে মসজিদ মাদ্রাসা সংরক্ষণে প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ দিচ্ছেন। রমজান মাস ইবাদতের মাস, তাই আমরা সকলে আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় এ মাস ইবাদতের মাধ্যমে শেষ করব। মাহে রমজানের ক্বদরদানী করতে হবে ইবাদত বন্দেগীর মাধ্যমে। তিনি আরো বলেন, মা-বাবার হক আদায় করতে হবে। আত্মীয়তা বজায় রাখতে হবে। নামাজ পড়তে হবে, হক্ব বিচার করতে হবে।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.