রায়ছটা ডাকঘর বসে ফার্মেসিতে, মূল অফিস সাঙ্গুনদে!

বাঁশখালী টাইমস: রায়ছটা ডাকঘর। পোস্ট কোড ৪৩৯৩। পোস্ট কোড থাকলেও নিজের অস্তিত্ব সাঙ্গুনদে বিলীন হওয়ার পথে! এমনভাবে ঝুঁকে আছে যেন কেউ হালকা ধাক্কা দিলেই ডুবসাঁতার খেলবে!

পুরাতন ঈশ্বর বাবুর হাটে পাড়ে অবস্থিত রায়ছটা উপ-ডাকঘর ঢলে পড়েছে সাঙ্গু নদে। নদের ভাঙ্গনে ডাকঘরের এই ভঙ্গুর দশা। সেই ডাকঘর এখন বসে বুড়ির টেকের লুৎফর রহমানের ফার্মেসিতে। ডাকঘরের কাজকর্ম সব ফার্মেসিতেই চলে। অনেক কন্ট্রাক্সুয়াল বলা চলে। এই ডাকঘর বাণীগ্রাম ডাকঘরের আওতাধীন।

ডাকঘরের এমন বেহাল দশা সম্পর্কে জানতে চাইলে হাজিগাঁও বরুমচড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষার শিক্ষক মুহাম্মদ শহীদুল ইসলাম জানান, কয়েকমাস ধরে এই ডাকঘর নদের দিকে ঝুঁকতে শুরু করেছে। যখন এই ডাকঘর নির্মাণ করা হচ্ছিল তখন স্থানীয় লোকজন ডাকঘরের ভবিষ্যৎ অবস্থা উপলব্ধি করে বর্তমান স্থানে বানাতে নিষেধ করেছিল, কিন্তু সেটা তখন আমলে নেওয়া হয়নি। তারই প্রেক্ষিতে ডাকঘরের এই বেহালদশা!

এদিকে সাঙ্গুনদ ভাঙতে-ভাঙতে জলকদরের সাথে প্রায় মিলিত হয়ে গেছে। ঈশ্বর বাবুর হাট আর এখন অবশিষ্ট নেই। হাতের ইশারায় দেখিয়ে দিতে হয়- ঐখানে ঈশ্বর বাবুর হাট ছিল।

শিক্ষক শহীদুল ইসলামসহ আরো অনেকে জানান, সাঙ্গুনদ থেকে নিরাপদ দূরত্বে বুড়ির টেকে নতুন ডাকঘর নির্মাণ করা হোক। তারা জানান, জনপ্রতিনিধিরা যেন এই ডাকঘর নির্মাণে দৃষ্টি দেন এবং দ্রুত পদক্ষেপ নেন।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.