মেজবানে পদদলিত হতভাগ্যদের ২ জন বাঁশখালীর !

মেজবানে পদদলিত হতভাগ্যদের ২ জন বাঁশখালীর !

বিটি ডেস্ক: সাবেক মেয়রের কুলখানির মেজবানে পদদলিত হয়ে যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে বাঁশখালীর দুইজন রয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাদের একজন ধনা শীল (৫০), বাড়ি বৈলছড়ির চেচুরিয়ায়। আরেকজনের নাম সুধীর দাশ।

বন্দরনগরীর আসকার দীঘির পাড়ে রীমা কমিউনিটি সেন্টারে চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানির মেজবানে অতিরিক্ত মানুষের ভিড়ে হুড়োহুড়িতে পদদলনের এ ঘটনা ঘটে।

পদদলিত হয়ে এখন পর্যন্ত ১৪ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়ে আরো অনেকে ভর্তি হয়েছেন হাসপাতালে। সোমবার (১৭ ডিসেম্বর) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে সুধীর দাশ, দীপংকর রাহুল দাস, আশিস বড়ুয়া, রীবন দাস, উজ্জ্বল চৌধুরী, প্রদীপ তালুকদার, ঝন্টু দাস, কৃষ্ণপদ দাস ও লিটন দেবের নাম পাওয়া গেছে। তাদের বয়স ৩০ থেকে ৪০ এর কোটায় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) কমিশনার ইকবাল বাহার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, রীমা কমিউনিটি সেন্টার থেকে ১৫ জনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। এর মধ্যে ১০জনকে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। হতাহতদের মধ্যে কোনো নারী ও শিশু ছিল না।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নিরাপত্তার কোনো ঘাটতি ছিল না। পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে দায়িত্ব পালন করছিলেন। কিন্তু অতিরিক্ত মানুষের ভিড়ের কারণে প্রধান গেট দিয়ে ঢোকার সময় অনেকে পড়ে যান। আর তখনই পদদলিত হয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

‘এটা মারামারি কিংবা অন্য কোনো ঘটনা নয়। নিরাপত্তারও অভাব হয়নি, অতিরিক্ত মানুষের ভিড় ও ঢোকার সময় হুড়োহুড়ির কারণে অনেকে পড়ে গিয়ে পদদলিত হয়েছেন।’

 

আরও পড়ুন :

মহিউদ্দীন চৌধুরীর মেজবানে পদদলিত হয়ে ৯জনের মৃত্যুর খবর

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.