বাঁশখালী টাইমসের বার্তা সম্পাদক হলেন সাংবাদিক মিজান বিন তাহের

বাঁশখালী টাইমস: বাঁশখালীভিত্তিক তারুণ্যনির্ভর প্রতিশ্রুতিশীল নিউজপোর্টাল বাঁশখালী টাইমসের বার্তা সম্পাদক হিসেবে যুক্ত হয়েছেন সাংবাদিক মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের।

তিনি বর্তমানে দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ ও দৈনিক সাঙ্গু পত্রিকার বাঁশখালী প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

বাঁশখালী টাইমস কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আজ ৫ অক্টোবর থেকে তিনি বার্তা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করবেন।

সাংবাদিক মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের নবম শ্রেণী থেকে লেখালেখির সাথে যুক্ত। ২০০৬ সাল থেকে পত্রিকায় লিখে আসছেন। সাংবাদিক শফকত হোছাইন চাটগামী সম্পাদিত বাঁশখালীর খবরের মাধ্যমে তাঁর সাংবাদিকতা জীবনের শুরু।

নিচে তাঁর বিস্তারিত জীবনবৃত্তান্ত তুলে ধরা হলো:

নামঃ- মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের
পিতাঃ- মরহুম আলহাজ্ব মাওঃ আবু তাহের
মাতাঃ- নুরজাহান বেগম
জম্ম তারিখঃ- ০১.১১.১৯৯০ইং
স্থায়ী ঠিকানাঃ- উত্তর জলদী, ছৈয়দ বাহার উল্লাহ পাড়া, ৩ নং ওয়ার্ড, উপজেলা সদর, বাঁশখালী পৌরসভা চট্টগ্রাম।
বর্তমান ঠিকানাঃ- ঐ
ধর্মঃ-ইসলাম
শিক্ষগত যোগ্যতাঃ- এইচ এস সি
পেশাঃ-ব্যবসা (প্রোঃ- মেসার্স বিছমিল্লাহ এন্টারপ্রাইজ, বাঁশখালী পৌর সদর চট্টগ্রাম) ১ম শ্রেনীর ঠিকাদার।
দাতা ও প্রতিষ্ঠাতা সদস্যঃ- আল জামিয়া আল ইসলামিয়া জলদী মখজনুল উলুম (বাইঙ্গা পাড়া) বাঁশখালী বড় মাদ্রাসা।

অভিজ্ঞতাঃ- বাঁশখালীর খবর, বাঁশখালী সমাচার, দৈনিক স্বাধীন সংবাদ, সাপ্তাহিক চট্টগ্রাম পোস্ট, চাঁটগার সংবাদ,পরিস্থিতিসহ বর্তমানে দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ ও দৈনিক সাঙ্গু পত্রিকার বাঁশখালী প্রতিনিধি হিসেবে ৩ বছর ধরে কর্মরত।

যোগাযোগের ঠিকানাঃ- বাঁশখালী উপজেলা সদর, ছৈয়দ বাহার উল্লাহ পাড়া(বাইঙ্গাপাড়া), মাওঃ মোহাম্মদ আলী সাহেবের বাড়ী(বাঁশখালী বড় মাদ্রাসা) ৩ নং ওয়ার্ড, বাঁশখালী পৌরসভা চট্টগ্রাম।
ইমেইলঃ[email protected]
০১৮২৪-৯৬৪২৬৭/০১৭৩৪-৯৭২৪৪৭

তাঁর বংশ ও পরিবারবৃত্তান্ত:

তাঁর দাদাঃ-পীরে কামেল মরহুম হযরত মাওলানা মোহাম্মদ আলী (রহঃ)
প্রতিষ্ঠাতা পরিচালকঃ- আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া জলদী মখজনুল উলুম (বাঈঙ্গাপাড়া) বাঁশখালী বড় মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা। তিনি পাশাপাশি রঙ্গিয়াঘোনা মনছুরিয়া ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার ও অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন।

পীরে কামেল মরহুম মাওলানা মোহাম্মদ আলী সাহের ২ স্ত্রী, ৪ পুত্র,৬ কন্যা রয়েছে।

♦ প্রথম পুত্র
পীরে কামেল মরহুম আলহাজ্ব ড.মাওলানা শিব্বির আহমদ,
তিনি পরিবারিক সংসার জীবনে আবদ্ধ হননি।
তিনি মিশর আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়, পাকিস্তান লাহোর বিশ্ববিদ্যালয় ও সৌদিআরব মদিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র অধ্যাপক ছিলেন, সৌদি আরবের রাজপ্রসাদ বাদশা ফাহাদ বিন আব্দুল আজিজের পারিবারিক সদস্যর মত ছিলেন।
তার কবরও রয়েছে মদিনা জান্নাতুল বাকিতে।

♦ ২য় পুত্রঃ-

মাওলানা হাসন আহমদ, চাক্তাই খাতুনগঞ্জ এর বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও দানবীর।
তার শ্বশুর হচ্ছেন দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম অলি এ কামেল জিরি বড় মাদ্রাসার সাবেক প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক পীর কামেল মুফতি মাওলানা নুরুল হক সাহেব (রহঃ)।

♦ ৩য় পুত্র

ঐতিহ্যবাহী দক্ষিণ চট্টগ্রামের সু-খ্যাত দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্টান আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া জলদী মখজনুল উলুম (বাঈঙ্গাপাড়া) বাঁশখালী বড় মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতার ৩ পুত্র, লন্ডন মসজিদুল আবারর এর সাবেক খতিব,আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া মদিনাতুল উলুম রাউজান দেওয়ানপুর মাদ্রাসাসহ বহু মাদ্রাসা মসজিদের পরিচালক আমার পরম শ্রদ্বেয় পিতা মরহুম আলহাজ্ব মাওলানা আবু তাহের (মাঃজিঃ)।
(আমার নানা হচ্ছেন কালীপুর এলাকার তৎকালীন পীরে কামেল মরহুম কাজ্বী ওজিউল্লাহ সাহেবের পুত্র মরহুম মাওলানা কাজ্বী ছলিম উল্লাহ সাহেব)

তারা ৪ ভাই ৪ বোনঃ- ১ম পুত্র বড় ভাই সৌদিআরব প্রবাসী, ২য় পুত্র মিজান। ৩য় পুত্র নিখোঁজ রয়েছে, ৪র্থ পুত্র ব্যবসায়ী। ২০১০ সালের ৮ ই সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার পবিত্র শবে কদরের দিন সবাইকে ছেড়ে চলে যান আল্লাহর দরবারে।

♦ ৪র্থ পুত্র
আলহাজ্ব মাওলানা ছাবের আহমদ
উনি ও সৌদিআরব প্রবাসী।

ফুফুদের মধ্যে বড় ফুফু কালীপুর পালেগ্রাম এলাকার মরহুম আব্দুল মান্নানের স্ত্রী, ২য় ফুফু জলদী মখজনুল উলুম বাইঙ্গাপাড়া মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা আবদুস সোবহান, ৩য় ফুফির বাড়ি পূর্ব জলদী জমশেদ মুন্সীর বাড়ির আব্দুল কাশেমের স্ত্রী, ৪র্থ টা হচ্ছে বাঁশখালীর ঐতিহ্যবাহী চাম্বল দারুল উলুম আইনুল ইসলাম মাদ্রাসার প্রধান পরিচালক সর্বজন শ্রদ্বেয় পীরে কামেল শাহ আবদুল জলিলের স্ত্রী, ৫ম টা হচ্ছে বাঁশখালী পৌরসভা ৬ নং ওয়ার্ডের রুহুল্লাহ পাড়া নিবাসী (বর্তমানে আগ্রাবাদ মিস্ত্রী পাড়া এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা) বিশিষ্ট শিল্পপতি ও দানবীর হাজী রশিদ আহমদ।

বর্ণাঢ্য পারিবারিক ঐতিহ্যের মধ্যে বেড়ে উঠা সাংবাদিক মিজান তাঁর লেখনীতে সামাজিক অসঙ্গতি তুলে আনেন এবং শাসকশ্রেণীর রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে অন্যায়ের বিরুদ্ধে কলম ধরেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top