বাঁশখালী আসনে জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী ইব্রাহিম আল হোসাইন

বাঁশখালী টাইমস: আগামী সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে অন্যান্য দলগুলোর প্রার্থীতা ঘোষণার ধারাবাহিকতায় এবার
জাতীয় পার্টি থেকে বাঁশখালী আসনে নির্বাচনের ঘোষণা এসেছে।

আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১৬ বাঁশখালী আসনে জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচন করবেন বলে জানিয়েছেন বাঁশখালী উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ইব্রাহিম আল হোসাইন।

এ প্রসঙ্গে সম্ভাব্য সংসদ সদস্য প্রার্থী ইব্রাহিম আল হোসাইন বাঁশখালী টাইমসকে এক সাক্ষাৎকারে বলেন- ১৯৯১ সালের পর থেকে জাতীয় পার্টি রাষ্ট্র ক্ষমতায় নেই। তখন থেকেই আমি দলের ছাত্রসংগঠন জাতীয় ছাত্রসমাজ ও পরবর্তীতে বাঁশখালী উপজেলায় জাতীয় পার্টির দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। অনেক ত্যাগ-তিতীক্ষা, দলীয় কর্মসূচি বাস্তবায়ন ও আর্থিক ক্ষতির স্বীকার হওয়ার পরেও পিছপা হয়নি, বাঁশখালীতে জাতীয় পার্টির অস্তিত্ব ধরে রেখেছি।
এখনও কেন্দ্রিয় সিদ্ধান্তের আলোকে দলীয় কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছি।

প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন- আমি বাঁশখালী আসনে নির্বাচন করতে দলের কাছে মনোনয়ন চাইবো। আশাকরি দল আমার অতীত কর্মকাণ্ড ও দলের প্রতি আমার ত্যাগ বিবেচনা করে আমাকে মনোনয়ন দিবেন। যদিও এ আসনে দলের একজন প্রেসিডিয়াম সদস্য আছেন, কিন্তু দলীয় কর্মসূচিতে ওনাকে দেখা যায়না।

ইব্রাহিম আল হোসাইন ১৯৯২ থেকে ৯৫ সাল পর্যন্ত জাতীয় ছাত্র সমাজ বাঁশখালী উপজেলা শাখার সভাপতি, ১৯৯৬ থেকে ২০০৫ পর্যন্ত জাতীয় ছাত্র সমাজ দক্ষিণজেলা সভাপতি, ২০০৬ থেকে ২০১৩ বাঁশখালী উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এবং ২০১৪ সাল থেকে বাঁশখালী উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

তিনি বাঁশখালী ইস্পাত হার্ডওয়ার ও ইলেক্ট্রিক পণ্য ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও বাঁশখালী ঠিকাদার সমিতির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন।

জনাব ইব্রাহিম জলদী হোসাইনীয়া ফাজিল মাদরাসার শিক্ষানুরাগী সদস্য, বাঁশখালী মডেল হাইস্কুলের পরিচালনা কমিটির সাবেক সদস্য, বাঁশখালী আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি হিসেবে শিক্ষা ও একই সাথে সমাজসেবায় সক্রিয়া ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন।

বাঁশখালী নিয়ে পরিকল্পনা জানতে চাইলে তিনি বলেন- বাঁশখালীতে যে হারে উন্নয়নের প্রচার করা হচ্ছে ঠিক সেভাবে উন্নয়ন হয়নি। আমি নির্বাচিত হলে অবহেলিত বাঁশখালীর অবকাঠামোগত উন্নয়ন, পশ্চিম বাঁশখালীর উন্নয়ন, বেকার সমস্যা, শিক্ষা, রাবারডেম বাস্তবায়ন করে অনাবাদী জমি চাষের আওতায় আনা ও পর্যটন শিল্পের বিকাশে কাজ করে যাবো।

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *