বাঁশখালীতে স্বাড়ম্বরে দুর্গোৎসব শুরু কাল

মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের: দক্ষিণ চট্টগ্রামের বহুল আলোচিত বাঁশখালী উপজেলায় শারদীয় দূর্গা পূজার সকল প্রস্ততি সম্পন্ন হয়েছে।। আগামীকাল শুক্রবার (৪ অক্টোবর) মহাষষ্ঠীর মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও দেবীর মুখোন্মোচনের মধ্যদিয়ে স্বাড়ম্বরে শুরু হতে যাচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা। ওইদিন থেকে মন্ডপে মন্ডপে বেজে উঠবে ঢাকঢোল আর কাঁসার শব্দ। ৫ দিনব্যাপী উৎসবের সমাপ্তি ঘটবে ৮ অক্টোবর প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে। গত (২৮ সেপ্টেম্বর) শনিবার শুভ মহালয়ার মধ্যদিয়ে দেবীদূর্গা এসেছেন মর্ত্যলোকে। এবার বাঁশখালীতে ৮৪ টি পূজা মন্ডপে দূগাপূজা ও ১০৬ টি ব্যাক্তিগত ঘট পূজা অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থাও গ্রহন করা হয়েছে। বাঁশখালীর বিভিন্ন পূজা মন্ডপ ঘুরে দেখা গেছে, বাঁশখালী জুড়ে এখন বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। শেষ পর্যায়ে কোন কোন মন্ডপে চলছে রংতুলির কাজ, ইতোমধ্যে বিভিন্ন মন্ডপে চলছে উৎসবের ব্যাপক প্রস্তুতি। আবার কোথাও চলছে সাজ-সজ্জা, প্যান্ডেল ডেকোরেশনের কাজ। অপরদিকে কেনা কাটায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। জামা কাপড় তৈরি, কেনা-কাটায় সরগরম বিপণীবিতানগুলোও। এদিকে দেবী দূর্গাকে বরণ করতে নতুন সাঁজে নতুন রূপে হাজারো সনাতন ধর্মাবলম্বী নারী-পুরুষ অধীর আগ্রহ উন্মুখ হয়ে আছে।
বাঁশখালী পূজা উদযাপন পরিষদের উপদেষ্টা ও থানা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক শ্যামল দাশ ও সাবেক সভাপতি প্রদীপ গুহ বলেন, ৪ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মধ্যদিয়ে শুরু হচ্ছে পাঁচ দিন ব্যাপী শারদীয় দূর্গা উৎসব। পূজাকে সামনে রেখে সকল কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। প্রতিটি মন্ডপে আইন শৃংখলা বাহিনীর পাশাপাশি নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা রক্ষায় পূজা কমিটির নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবককর্মী নিয়োগ থাকবে । শান্তি পূর্ণ পরিবেশে উৎসব পালনের লক্ষ্যে প্রশাসনিক ব্যবস্থা জোরদার করার আহবান জানান তারা।বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম মজুমদার জানান, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দূর্গা পূজা উপলক্ষ্যে বাঁশখালী থানা পুলিশের পক্ষ থেকে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। পূজা মন্ডপ গুলোকে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। পূজার শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে পুলিশ প্রশাসন সদা তৎপর থাকবে। বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোমেনা আক্তার জানান, বাঁশখালীতে সর্ব মোট ৮৪ টি পূজা মন্ডপে দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি পূজা মন্ডপে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা যাতে সুন্দরভাবে পূজা পালন করতে পারে সে লক্ষ্যে আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করবেন। পাশাপাশি পূজা মন্ডপের নিজস্ব ভোলান্টিয়ার সদস্যরাও সক্রিয় থাকবে। বাঁশখালীতে শান্তিপূর্ণ ভাবে পূজা উদ্যাপন উপলক্ষে বাঁশখালীর সাংসদ আলহাজ¦ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এমপি বলেন, বাঁশখালী সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য দৃষ্টান্তের একটি এলাকা। এখানে হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিস্টানসহ আমরা বিভিন্ন ধর্মের লোকজন শান্তিপূর্ণ ভাবে বসবাস করি। ‘ধর্ম যার যার উৎসব সবার’ এই স্লোগানকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী আরো বলেন, আমরা মুসলমানরা যেভাবে স্বাধীনভাবে নিজেদের ধর্মীয় উৎসব পালন করি তেমনি সনাতনী সম্প্রদায়ের ভাইয়েরাও শান্তিপূর্ণ ভাবে দূর্গোৎসব পালন করবে। তিনি বলেন, এই দূর্গোৎসবে কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইলে তাদেরকে ধরে পুলিশ এবং আমাকে খবর দেবেন। বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে ইনশাল্লাহ। তিনি আরো বলেন, আমি অন্যায়কে কখনও প্রশ্রয় দেইনি আগামীতেও দেবনা। এই দূর্গোৎসবকে ঘিরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক নিরাপত্তা প্রদানের জন্য ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। সম্প্রীতির বাঁশখালী হিসেবে অনেক সুনাম রয়েছে। এ সুনামকে ধরে রাখতে সকল সম্প্রদায়ের লোকজনকে সহমর্মিতা ও ধৈর্য ধারণ করতে হবে। তিনি বাঁশখালীর সম্প্রীতি যাতে নষ্ট না হয় সে জন্য সতর্কতা অবলম্বন করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। তিনি এবারে শারদীয় দুর্গা পূজা উৎসব সফল করতে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন এবং তিনি বাঁশখালীর সনাতন ধর্মের সবাইকে শারদীয়া দূর্গা পূজা শুভেচ্ছা জানান।

Prottasha-Coaching

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.