বাঁশখালীতে ইসলাম ধর্ম নিয়ে হিন্দু শিক্ষকের কটুক্তি, বিক্ষোভ

মুহাম্মদ মিজান বিন তাহের, বাঁশখালী টাইমস: চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে বিদ্যালয়ে পাঠদানকালে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটুক্তি, ইসলামকে জঙ্গিবাদের ধর্ম অাখ্যা দিয়ে ও ‘ইসলাম শান্তির ধর্ম’ এটা কোন্ ডিকশনারীতে আছে এমন মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে বাহারচরা রত্নপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের এক সহকারী শিক্ষক শিবানন্দ দেব (৩২) এর বিরুদ্ধে। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্কুলের শিক্ষার্থীসহ ধর্মপ্রাণ গ্রামবাসীরা বিক্ষোভ মিছিল, স্মারকলিপি প্রদান ও অভিযুক্ত শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

গত শনিবার (১৪ মার্চ) দুপুরে বাঁশখালী উপজেলার বাহারচরা রত্নপুর উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সর্বস্তরের ধর্মপ্রান মুসলিম জনতা ও বাহারছরা ইউনিয়ন মুসলিম ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ অভিযুক্ত শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। প্রায় ২শতাধিক লোকজনের সমাগমে বিক্ষোভ মিছিলটি বশিরউল্লাহ বাজার থেকে বাহারচরা রত্নপুর উচ্চ বিদ্যালয় গিয়ে শেষ হয়।

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিগত ৫ মার্চ ইসলাম ধর্মীয় শিক্ষক না থাকায় অত্র বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক স্বপন কান্তি দাশ শিবানন্দ দেবকে দশম শ্রেণীর ইসলাম শিক্ষা ক্লাসের পরিবর্তে বাংলা ক্লাস করার জন্য পাঠালেই শিবানন্দ দেব বাংলা ক্লাস না নিয়ে ইসলাম ধর্ম অর্থ কি? জিজ্ঞাসা করলে দশম শ্রেণীর ছাত্র মু. রাকিব উত্তরে বলেন ‘শান্তির ধর্ম’। তাৎক্ষনিক শিবানন্দ দেব ইসলামকে জঙ্গিবাদের ধর্ম অাখ্যা দিয়ে ও ‘ইসলাম শান্তির ধর্ম’ এটা কোন্ ডিকশনারীতে আছে দেখাও বললে ছাত্র মু. রিদুয়ান ইসলামশিক্ষা বই থেকে স্যারকে দেখালো। এতে রেগে ওই শিক্ষক ক্লাস থেকে চারজন ছাত্রকে বের করে দিয়ে ইসলাম ধর্মকে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য ও কটুক্তি করতে থাকে। পরে ছাত্ররা অত্র বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক স্বপন কান্তি দাশকে ডেকে নিয়ে অাসলে তিনি শিবানন্দ দেবকে ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি না করে ক্লাস থেকে বের হয়ে যাওয়ার জন্য বললেও অভিযুক্ত ওই শিক্ষক ক্লাস থেকে বের না হয়ে উল্টো ক্লাসরুমে অবস্থান করেন। এ পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠলে পরে স্বপন কান্তি দাশ ছাত্রদের ক্লাস থেকে ছুটি দিয়ে দেন। তাছাড়া ওই শিক্ষক এই ধরনের ঘটনা পূর্বেও বহুবার ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্ররা।

এ বিষয়ে জানতে চেয়ে বাহারচরা রত্নপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মৃদুল কান্তি দে কে একাধিকবার ফোন করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

বাহারচরা এলাকার যুবলীগ নেতা মোঃ শাহেদ বলেন, ইসলাম ধর্মকে নিয়ে কটুক্তিকারী শিক্ষকের বিরোদ্ধে দৃষ্টান্তমূল শাস্তির দাবী জানিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে স্মারকলিপি প্রদান করি। তিনি আরো বলেন- এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক মৃদুল কান্তি দে অাগামী ১৭ মার্চ স্কুল কমিটির মাসিক জরুরী বৈঠকের মাধ্যমে একটা বিহীত ব্যবস্থা ও সিদ্ধান্ত নিবেন বলে আমাদের অাশ্বস্থ করেন। তাছাড়া এ সৃষ্ট পরিস্থিতে অভিযুক্ত শিক্ষককে সাময়িকভাবে স্কুলে আসা বন্ধ রেখেছেন বলেও জানান প্রধান শিক্ষক।

এব্যাপারে বাঁশখালী থানার ওসি মুহাম্মদ রেজাউল করিম মজুমদার জানান, ইসলাম ধর্মকে নিয়ে কটুক্তির অভিযোগ এখনো আমার কাছে আসেনি, তবে ঘটনার সত্যতা তদন্ত সাপেক্ষে শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.