বাঁশখালীতে আওয়ামীলীগের উদ্যোগে মৌলভী সৈয়দের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

BanshkhaliTimes

মু. মিজান বিন তাহের, বাঁশখালী টাইমস: বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম প্রতিবাদকারী, চট্টলবীর চট্টগ্রাম পূর্বাঞ্চলীয় গেরিলা বাহিনীর অধিনায়ক, চট্টগ্রাম নেভাল অপারেশন জ্যাকপট এর প্রধান বেইজ কমান্ডার, চট্টগ্রাম আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, চট্টগ্রাম শহর ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, চট্টগ্রাম মুজিব বাহিনীর প্রথম পতাকা উত্তলনকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ মৌলভী সৈয়দ আহমেদের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আজ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বাঁশখালী উপজেলা ও পৌরসভা আওয়ামীলীগের যৌথ উদ্যোগে বাঁশখালী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের হল রুমে পৌরসভা আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও পৌর মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা শেখ সেলিমুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক চেয়ারম্যান মহিউদ্দীন চৌধুরী খোকা, চেয়ারম্যান রশিদ আহমদ চৌধুরী, থানা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক সরওয়ার কামাল, চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, চেয়ারম্যান আ.ন.ম শাহাদত আলম, চেয়ারম্যান মোঃ ইয়াছিন, চেয়ারম্যান বদরুদ্দীন চৌধুরী, চেয়ারম্যান কফিল উদ্দীন চৌধুরী, এডভোকেট তোফাইল বিন হোসাইন, হামিদ উল্লাহ প্রমুখ।

এ সময় পৌরমেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শেখ সেলিমুল হক চৌধুরী বলেন, ১৯৬৮ ও ৬৯ এর গণআন্দোলনে তিনি নেতৃত্ব দেন। ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণের মাধ্যমে তার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করেন।
১৯৭৫ এর ১৫ই আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার প্রতিবাদ করতে গিয়ে যে কজন সাহসী সন্তান প্রাণ দিয়েছেন মৌলভী সৈয়দ ছিলেন তাদের মধ্যে প্রথম শহীদ।
১৯৭৭ সালের ১১ আগস্ট স্বৈরশাসক জিয়াউর রহমান বিনা বিচারে তাকে হত্যা করেছিল। মেজর জিয়া সেদিন বিচারের নামে প্রহসন করে কর্ণেল তাহেরসহ অনেক মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা করেছিল, যাদের নাম হয়তবা আমাদের জানা নেই। সংগ্রামের মাধ্যমে যার জীবন শুরু তার নাম শহীদ মৌলভী সৈয়দ। তিনি অন্যায়ের কাছে কোন দিন মাথা নত করেননি।’

৬৯ এর গণ আন্দোলনে চট্টগ্রামে যেকজন ছাত্রনেতা নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তিনি ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম। আইয়ুব বিরোধী আন্দোলনে দীর্ঘদিন কারাবন্দি ছিলেন।
বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রতি অবিচল থেকে মুক্তিযুদ্ধের সময় চট্টগ্রাম শহরে কয়েকটি গেরিলা অভিযানে তিনি ব্যক্তিগতভাবে নেতৃত্ব দিয়ে সফল হয়েছিলেন। তিনি ছিলেন একজন সত্যিকারের দেশপ্রেমিক ব্যক্তি। ১৯৭৭ সালে ১১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদ করলে তৎকালীন সেনা সরকার মৌলভী ছৈয়দকে তুলে নিয়ে গিয়ে হত্যা করে। এদিকে তার এই অবদানের কথা তরুণ প্রজম্মকে জানিয়ে দিতে বাঁশখালীর মাটি ও মানুষের নেতা, বাঁশখালীর অভিভাবক উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও চট্টগ্রাম -১৬ বাঁশখালী আসন থেকে দুই দুই বার বিপুল ভোটে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরীর নির্দেশে তার পক্ষ থেকে আমরা আজকে তার মৃত্যুবার্ষিকী ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছি।’

প্রসঙ্গত, ১৯৭৭ সালের ১১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদ করলে তৎকালীন সেনা সরকার মৌলভী সৈয়দকে তুলে নিয়ে হত্যা করে।

 

 

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.