ফেসবুক লাইভে এসে কাঁদলেন এভ্রিল: ডিভোর্সের কথা স্বীকার

ফেসবুক লাইভে এসে বিয়ে ও ডিভোর্সের কথা স্বীকার করেছেন ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল। ‘পৃথিবীর সব মানুষের কাছে সম্মান রেখে’ তিনি কিছু কথা বলেছেন। কেন বিয়ের কথা গোপন করেছিলেন, কেনই-বা প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন, এমন সব প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন তিনি।

এভ্রিল বলেন, ‘আমি ছোটবেলা থেকে কোনো বাঁধাবিপত্তিতে মাথা নত করিনি।…একটা ১৬ বছরের মেয়েকে তার বাবা জোর করে বিয়ে দিচ্ছে, সেই মেয়ে বিয়ের আসর থেকে পালিয়ে এসেছে। সেই মেয়ে এখন সাকসেসফুল। সে তার সমাজের কোনো কথা শোনেনি। আশপাশের কারো কথা কানে নেয়নি। তার একটাই উদ্দেশ্য ছিলো, যেখানে ২০ কোটি মানুষের বাংলাদেশে বাল্যবিবাহ একটি দৈনদিন্দন ঘটনা, সেখানে বাল্যবিবাহ আমি মানতে পারিনি।’

এভ্রিল আরও বলেন, ‘১৬ বছরে বিয়ে দিলেই কোনো মেয়ের বিয়েটা হয়না। সেটা বাল্যাবিবাহ হিসেবে গণ্য। আমি চেয়েছিলাম সে সবের এগেইনেস্টে কাজ করতে।’

সোমবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে ফেসবুক লাইভে এসে এসব বলতে বলতে কেঁদেছেন এই সুন্দরী। বলেছেন, কীভাবে তার বাল্যবিবাহ হয়েছিলো। তার বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও লেখিকা বেগম রোকেয়ার উদারহরণ টেনে এভ্রিল বলেন, ‘মেয়েরা চাইলে অনেক কিছু করতে পারে।’

চোখে জল নিয়ে চট্টগ্রামের এই সুন্দরী আরও বলেন, ‘আমি ডিভোর্সি, ফাইন, আমি একটা মেয়ে। এজ এ হিউম্যান আমার রাইট আছে, একটা ইন্টারন্যাশনাল প্ল্যাটফর্মে গিয়ে নিজেকে প্রেজেন্ট করার। কই আমি তো নিজের জন্য কিছু চাইনি! আমি চেয়েছিলাম আপনাদের দেশের মেয়েগুলাকে জাস্ট দেখিয়ে দিতে যে, একটা মেয়ে চাইলে কী কী পারে।’

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে আলোচনা-সমালোচনা চলছে জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলকে নিয়ে। বিয়ে ও ডিভোর্সের কথা গোপন করে প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন তিনি। গণমাধ্যমে এখন পর্যন্ত বিয়ে বা ডিভোর্সের কথা স্বীকার না করলেও নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে লাইভ ভিডিওতে স্বীকার করেছেন এভ্রিল। কিছুক্ষণের মধ্যে সেই লাইভ ভিডিও আবার ডিলিটও করেছেন আলোচিত এই তরুণী।

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published.