ফেসবুক আইডি ডিজেবল

ফেসবুক আইডি ডিজেবল হওয়া থেকে কিভাবে বাঁচাবেন

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক – বিটি ঃ বর্তমানে ফেসবুক আইডি ডিজেবল একটি বড় সমস্যা। আসলে নিজের শখের ফেসবুক আইডিটি ডিজেবল হয়ে গেলে কতটা কষ্ট হয় সেটা যাদের হয়েছে শুধু তারাই বুঝতে পারে। ধরুন আপনার একটি পছন্দের আইডির বয়স ৫ বছর। এতে আপনার অনেক স্মৃতি বিজড়িত মুহূর্ত রয়েছে। অনেক গুরুত্বপূর্ণ জিনিস আছে।

হঠাৎ করে আপনার কোন একটি ভুলের কারণে আইডিটা নষ্ট বা ডিজেবল হয়ে গেল। আসলে তখন আপনার এতটা খারাপ লাগবে যে সেটা বলার মত নয়। তাই আজকে আমরা আলোচনা করব কিভাবে আপনার আইডিটিকে ডিজেবল হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করবেন।

মূলত বর্তমান সময়ে ফেসবুক তাদের Terms & Policy এবং Community Guidelines পরিবর্তন করেছে এবং নতুন নতুন রুলস যুক্ত করেছে। যার কারণে বর্তমানে প্রতিটি পদক্ষেপ হিসেব করে ফেলতে হবে। কিছু নিয়মাবলী ফলো করলে আশাকরি ভবিষ্যতে আপনার আইডি ডিজেবল হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করতে পারবেন।

১. আপনার আইডিতে কমপক্ষে আপনার নিজের পাঁচটি ছবি রাখার চেষ্টা করবেন।

২. আপনার আইডিতে কোনো স্প্যামিং করবেন না।

  • আমরা ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের পোস্ট দেখে থাকি এবং আমরা অযথাই একই কমেন্ট বিভিন্ন পোস্টে অনেকগুলো করে থাকি। একটি পোস্টে একই ধরণের অনেকগুলো কমেন্ট কিংবা একই কমেন্ট বিভিন্ন জনের  পোস্টে করাটা মূলত স্প্যামিংয়ের মধ্যে পড়ে। এই ধরনের কাজগুলো করলে আপনার ফেসবুক একাউন্ট কমিউনিটি গাইডলাইনস এর বাইরে চলে যাবে এবং আপনার আইডি ডিজেবল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। মাঝে মধ্যে অনেককেই এই কমিউনিটি গাইডলাইন স্ট্রাইক দেওয়া হয়। কখনো ৭/১৫/৩০ দিনের জন্য কমেন্ট ডিজেবল করা হয়। এই সময়ের মধ্যে আপনি কমেন্ট করতে পারবেন না।

৩. আপনি আপনার আইডির দিয়ে ১৮+ বা সেক্সুয়াল কিছু আদান-প্রদান করবেন না। বর্তমানে ফেসবুক আইডি ডিজেবল হওয়ার এটি বড় কারণ। এটা আসলে অনেকেই না জেনে করে থাকেন এবং কিছু বোঝার আগেই তাদের পছন্দের আইডি ডিজেবল হয়ে যায়।

৪. আপনার নিজের প্রোফাইল ডিটেলস রাখার চেষ্টা করবেন। আপনি কোথায় থাকেন, কি করেন, কোথায় পড়াশোনা করেন, ইত্যাদি। ফেক নাম ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

৫.ফেসবুকে কোন অবাঞ্ছিত পোস্ট বা ছবি দিবেন না, যেটা তাদের কমিউনিটি গাইডলাইনের বাইরে যায়।

৬. আপনার আইডি দিয়ে একদিনে কোনো লিংক ৫ বারের অধিক শেয়ার করবেন না এবং স্পামিং করবেন না।

৭. কোনো সময়ই VPN ব্যবহার করে ফেসবুকে যাবেন না। এটাও একটা বড় কারণ।

৮. আপনার একাউন্ট অবশ্যই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে কিংবা পাসপোর্ট দিয়ে ভেরিফাই করে রাখবেন।

৯. একাউন্ট অবশ্যই মোবাইল নাম্বার এবং ইমেইল এড্রেস উভয় দিয়ে ভেরিফাই করে রাখবেন। ইমেইলে কমপক্ষে ৩মাসে একবার লগইন করবেন। অন্যথায় ইমেইল ডিজেবল হয়ে যাবে।

আশা করা যায় উপরের পদক্ষেপগুলি ফলো করলে আপনার পছন্দের আইডিটি ডিজেবল হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করতে পারবেন। ধন্যবাদ।

 

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published.