প্রাইমারী শিক্ষকতায় কেন আসবেন?

BanshkhaliTimesপ্রাইমারি নিয়োগ নিয়ে পরামর্শের চাওয়ার প্রেক্ষিতে কিছু কথা (পর্ব:১)

যে সুযোগ-সুবিধা পাবেন প্রাইমারিতে আসলে:

১. প্রথমে বলে রাখি তুলনা করলে পৃথিবীর কোন পেশাতেই, কোন প্রাপ্তিতেই আপনার মন ভরবে না। সন্তুষ্টি থাকলে, নিচের দিকে থাকালেই কেবল মন ভরাতে পারবেন।
২. যদি জাতিকে দেওয়ার মানসিকতা থাকে, তাহলে প্রাইমারি আপনার জন্য।

৩. এবার অাসল কথা বলি- দুই ইদে বেসিকের সমপরিমাণ দুই বোনাস পাবেন, অন্য ধর্মাবলম্বীরা পূজো বা তাঁদের প্রধান ধর্মীয় উৎসবে দুই বোনাস পাবেন।

৪. ছুটি পাবেন পর্যাপ্ত। ২০২০ সালের ছুটির তালিকা অনুযায়ী মোট ৮৫ দিন ছুটি ছিল। যদিও করোনার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রথমবারের মত টানা এতদিন বন্ধ।

৫. সবচেয়ে বড় বন্ধ পাবেন রমজানে। রমজানে ক্লাস নিতে হয় না। পুরো মাস শান্তিতে ইবাদত করতে পারবেন।

৬. দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ছুটি পাবেন পূজো ও কোরবানের সময়। ২০২০ সালের ছুটির তালিকায় ৭ দিন করে ছিল।

৭. নানান ধর্মের শিক্ষার্থী থাকায় মোটামুটি সকল প্রধান প্রধান পূজো-পার্বনে ছুটি থাকে।

৮. শনিবার সরকারি অফিস বন্ধ থাকলেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকে। তাছাড়া ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২৬ শে মার্চ, ১৭ মার্চ, ১৫ আগস্টের মত জাতীয় দিবসে উপস্থিত থাকতে হবে বাধ্যতামূলকভাবে।
তবে বর্তমানে সপ্তাহে দুই দিন ছুটি বিবেচনাধীন।সম্ভবত ২০২২ সাল থেকে কার্যকর হতে পারে।

৯. ৩ বছর পর পর শ্রান্তি বিনোদন ভাতা পাবেন। ১ বেসিক পরিমাণ টাকা + ১৫ দিন ছুটি।যদিও এটা সকল সরকারি কর্মচারীই পায়।

১০. অফিসে দপ্তরি বা অফিস সহায়ক পাবেন। যেটা পূর্বে ছিল না।

১১. ২০০ টাকা টিফিন ভাতা পাবেন প্রতি মাসে, সন্তান থাকলে প্রতি মাসে ২ সন্তান পর্যন্ত ৫০০ টাকা করে ভাতা পাবেন।

১২. প্রতি ক্লাস ৪৫ মিনিটের, প্রতি ক্লাস পর পর ১০ মিনিট গ্যাপ পাবেন।যেটা আগে ছিল না। একদম নতুন এ সুবিধাটি।

১৩. লাঞ্চ ব্রেক ৪৫ মিনিট। এটাও নতুন সুবিধা।

১৪. প্রাক-প্রাথমিকের শিক্ষকদের ক্লাস ৯:৩০ থেকে দুপুর ১২:০০ টা পর্যন্ত। এরপর দুএকটি ক্লাস নিতে হয়।

১৫. ৩:১৫ মিনিটে স্কুল শেষ। তবে বৃহস্পতিবার দুপুর ২:২৫ পর্যন্ত।

১৬. স্বামী বা স্ত্রীর কর্মস্থলে বা স্থায়ী ঠিকানায় বদলি হতে পারবেন। এক্ষেত্রে দলিল পত্র জমা দিতে হবে।

১৭. দুজনই সরকারি চাকরিজীবী হলে স্বামী বা স্ত্রীর কর্মস্থলেও বদলির সুযোগ রয়েছে।
১৮. বিধবা বা তালাকপ্রাপ্ত হলেও স্বামী /পিতার স্থায়ী ঠিকানায় বদলি হওয়া যাবে।

১৯. দুই বছর হলে বদলির যোগ্যতা অর্জন করবেন। তবে একবার বদলি হলে তিন বছর পর বদলি আবেদন করতে হবে।

২০. স্যার ডাক শুনতে শুনতে অস্থির হয়ে যাবেন। অভিভাবকদের সম্মান পাবেন। স্কুলের আশে-পাশে থাকলে সম্মানজনক আচরণ পাবেন।

২২. উপজেলা বা থানা ভিত্তিক নিয়োগ পাবেন, অন্য উপজেলায় নিয়োগ পেলে সিট শূন্য হলে নিজ উপজেলায় অটো ট্রান্সফার করে দিবে কর্তৃপক্ষ।

২১. সর্বোপরি, জাতি গড়ার মহান দায়িত্ব আপনাদের উপর। কোমলমতি শিশুদের মনন গঠনের দায়িত্ব আপনাদের উপর। জাতির সেবা করার সুযোগ সবচেয়ে বেশি আপনাদের কাছে। আপনাদের উপরই বেসিক তৈরি হবে আমাদের আদরের সন্তানদের।

তাই নিজেকে ছোট মনে করার কোন কারণ নেই। বিসিএস ক্যাডার আপনাদের এই বর্তমান বেসিকেই বেতন পেত ২০১৫ স্কেলের আগে। এখন গ্রেড বেড়ে ১৩ হয়েছে প্রাথমিকের। আগে ১৫ তম ছিল। সরকার অনেক সুযোগ-সুবিধা দিয়েছে। সবাই স্নাতক হওয়ায় আরো সুযোগ-সুবিধা পাবেন। আগামী ৩০ বছর কম করে হলেও ৩টি বেতনস্কেল দিবে।সুতরাং অর্থ কষ্ট চলে যাবে ইনশাঅাল্লাহ।
সর্বোপরি, আপনারা স্নাতকধারীরা আসলে ভবিষ্যতে মজবুত প্রজন্ম তৈরি হবে।এগিয়ে যাবো আমরা।

তাই কবির ভাষায় বলব-
” পিতা গড়ে শরীর
শিক্ষক গড়ে মন
পিতা বড় না শিক্ষক বড়
বলিবে কোন জন। ”

লেখক:
মোহাম্মদ রায়হান উদ্দিন
প্রভাষক
সাতকানিয়া সরকারি কলেজ

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.