প্রথম হজ-ফ্লাইট আজ থেকে শুরু

বাঁশখালী টাইমস:  ২০১৭ মৌসুমে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম হজ ফ্লাইট সোমবার (২৪ জুলাই) থেকে শুরু হয়েছে। আজ সকাল ৭টা ৫৫ মিনিটে বিমান বিজি-১০১১-এর একটি ফ্লাইটে ৪১৯ জন হজযাত্রী জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে গেছেন।

 

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন উদ্বোধনী ফ্লাইটের হজযাত্রীদের বিদায় জানান। চট্টগ্রাম ও সিলেট থেকেও এ বছর যথারীতি প্রয়োজনীয়-সংখ্যক হজ ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান।

 

হজ ফ্লাইট উদ্বোধন প্রসঙ্গে বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ জানান, ‘এ বছর হজ ফ্লাইট ও শিডিউল ফ্লাইটে মোট ৬৩,৫৯৯ (ব্যালটি ও নন-ব্যালটি) জন হজযাত্রী বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে জেদ্দা যাবেন। হজযাত্রীদের ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা রুটে পারাপারের জন্য ইতোমধ্যেই নিজস্ব বোয়িং ট্রিপল সেভেন উড়োজাহাজ প্রস্তুত রেখেছে।

 

এছাড়া ৪০৬ আসনের লিজে বোয়িং ৭৭৭-২০০ উড়োজাহাজ হজযাত্রীদের পারাপার করবে। ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা রুটে চলাচলকারী বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের নিয়মিত শিডিউল ফ্লাইটেও কিছু হজযাত্রী যাবেন।

বিমান জানিয়েছে, বাংলাদেশ থেকে এ বছর প্রায় ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজযাত্রী সৌদি আরব যাবেন। এ বছর ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকারুটে হজযাত্রীদের ইকনোমি ক্লাসে বিমান ভাড়া ১ হাজার ৪৭৫ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করা হয়েছে। ঢাকা থেকে জেদ্দা প্রতি ফ্লাইটের উড্ডয়নকাল হবে আনুমানিক ৭ ঘণ্টা। দুই মাসব্যাপী হজ ফ্লাইট পরিচালনায় শিডিউল ফ্লাইটসহ মোট ৩৪৬টি ফ্লাইট পরিচালিত হবে। এরমধ্যে ২৮৩ ‘ডেডিকেটেড’ এবং ৬৩টি শিডিউল ফ্লাইট। ২৪ জুলাই থেকে ২৬ আগস্ট পর্যন্ত মোট ১৭৭টি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে (ডেডিকেটেড-১৪৪ এবং শিডিউল-৩৩)। হজযাত্রীদের দেশে ফিরতে ১৬৯টি ফ্লাইট চলবে ৬ সেপ্টেম্বর থেকে ০৫ অক্টোবর পর্যন্ত (ডেডিকেটেড-১৩৯ এবং শিডিউল-৩০)।

প্রত্যেক হজযাত্রী বিনামূল্যে সর্বাধিক ২টি ব্যাগ ও একটি হাত ব্যাগ বহন করতে পারবেন। বিজনেস ক্লাসের হজযাত্রীদের ক্ষেত্রে ২টি ব্যাগের ওজন ৫৬ কেজির বেশি হতে পারবে না। তবে একটি ব্যাগ ২৮ কেজির বেশি হতে পারবে না। বিজনেস ক্লাস ছাড়া অন্যদের ক্ষেত্রে দু’টি ব্যাগ মিলিয়ে ওজন ৪৬ কেজির বেশি হতে পারবে না। প্রত্যেক হজযাত্রী কেবিন ব্যাগেজে ৭ কেজির বেশি সঙ্গে নিতে পারবেন না।

প্রত্যেক হজযাত্রীর জন্য ৫ লিটার জমজমের পানি ঢাকায় নিয়ে আসা হবে। হাজিরা ঢাকা ফিরে আসার পর তাদের হাতে ওই পানি দেওয়া হবে। হাজিরা কোনও বিমানে পানি বহন করতে পারবেন না। হজযাত্রীরা যেকোনও ধারালো বস্তু, ছুরি, কাঁচি, নেইল কাটার, ধাতব নির্মিত দাঁত খিলন, কান পরিষ্কারক, তাবিজ ও গ্যাস জাতীয় বস্তু, অ্যারোসল এবং ১০০ (এমএল)-এর বেশি তরল পদার্থ হ্যান্ড ব্যাগে বহন করতে পারবেন না। এছাড় কোনও খাদ্য সামগ্রীও সঙ্গে নিতে পারবে না।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.