পুইছুড়িতে বসতভিটা উচ্ছেদের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীর মানববন্ধন

Prottasha-Coaching
মিজান বিন তাহের, বাঁশখালী টাইমস: বাঁশখালী ইউনিয়নে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে বেড়িবাঁধ নির্মাণকে কেন্দ্র করে এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।

আজ বুধবার (১৬ জানুয়ারী) দুপুরে পুঁইছুড়ি ইউনিয়নের নবনির্মিত বেড়িবাঁধ প্রকল্প নির্মাণের ম্যাপে শত শত বছরের বসত ভিটা বাড়ি ঘর উচ্ছেদের বিরুদ্ধে প্রতিকার চেয়ে এলাকাবাসীরা তাদের ক্ষয়ক্ষতি ও পুনর্বাসনের দাবিতে উপজেলা সদরে বিক্ষোভ মিছিল মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।

ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন পশ্চিম পুঁইছুড়ি হতে বহদ্দারহাট পর্যন্ত খাল ও গোবিন্দার খালের পুইঁছুড়ি অংশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে অপরিকল্পিত প্রকল্প হাতে নিয়ে মাটি কেটে বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ শুরু করে। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে আমাদের শত শত বসত বাড়ি, পুকুরসহ মূল্যবান স্থাপনা উচ্ছেদ করতে হবে। যার ফলে আমাদের কে পথে নামতে হবে। তারা আরো অভিযোগ করে , বেড়িবাধ প্রকল্পের আশ পাশে সরকারী খাস জমি ছাড়াও আমাদের মালিকানাভূক্ত দখলি জমিতে উত্তরাধিকার সূত্রে ঘর-বাড়ি নির্মাণ করে ভোগ দখলে আছি। কিন্তু কোন ক্ষতিপূরণ ও পূর্নবাসনের ব্যবস্থা না করে তারা বেড়িবাঁধ নির্মাণ করছে। আমাদেরকে কোন প্রকার নোটিশ পযর্ন্ত দেওয়া হয় নাই। যার ফলে আমরা বাস্তুহারা হয়ে পড়ব।

মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান কালে উপস্থিত ছিলেন, পুইঁছুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা সুলতান গনী চৌধুরী লেদু মিয়া, দক্ষিন জেলা ছাত্রলীগ নেতা খোরশেদ পাশা , যুবলীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ, পুইছুঁড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ছৈয়দ আজম , ফজল করিম, মোঃ আবু তাহের, মোঃ আনছার, আলমীর ,রামপদ জলদাশ , কমল জলদাশ, যদুনাথ জলদাশ, সালাহদ্দীন, কাইছার উদ্দীন প্রমুখ।

মানববন্ধন শেষে ক্ষতিগ্রস্ত ছৈয়দ আজম বলেন, আমরা আমাদের পূর্বপুরুষ থেকে শুরু করে প্রায় শত বছর যাবৎ এই এলাকায় বসবাস করে আসতেছি।

হঠাৎ বেড়িবাঁধ নির্মাণের কথা বলে আমাদেরকে কোন প্রকার নোটিশ প্রদান না করে ঘর বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার জন্য মাইকিং করে। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদেরকে ন্যায্য ক্ষতিপূরণ সহ পূর্নবাসনের দাবী জানাচ্ছি।

পুইছুঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সুলতানুল গনী চৌধুরী বলেন, আমার ইউনিয়নে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে যেই বেড়িবাঁধ প্রকল্প নির্মাণ হচ্ছে সেখানে খাস জমি এবং ব্যক্তি মালিকানা জায়গাও রয়েছে। আমি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি কিন্তু আমাকে পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে কেউ অবগত করেননি এবং ক্ষতিগ্রস্ত কাউকে নোটিশ প্রদান করেননি। কিন্তু গত কয়েকদিন পূর্বে এলাকাবাসীকে উঠে যাওয়ার জন্য মাইকিং করেছে। আমি পানি উন্নয়ন বোর্ড এবং সরকারের কাছে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসীর পূর্নবাসনের দাবী জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার জানান, আমি বিষয়টি আজকেই পরির্দশন করে পানি উন্নয়ন বোর্ডে এবং আগামী রবিবার জেলা আইনশৃঙ্খলা মিটিংএ বিষয়টি উপস্থাপনা করব। পরবর্তীতে উর্দ্ধতন কতৃপক্ষ এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

Prottasha-Coaching

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.