দেশেও সোনার বাজার গরম

দেশেও সোনার বাজার গরম। আন্তর্জাতিক বাজারে বেড়েই চলেছে স্বর্ণের দাম। গত দুইদিনে দাম বেড়েছে সাড়ে তিন শতাংশের বেশি। যার রেশ ধরে আজ থেকে দেশের বাজারেও প্রতিভরি স্বর্ণের দাম প্রায় সাড়ে ৪ হাজার টাকা বেড়ে প্রতিভরি স্বর্ণের দাম ৭৭ হাজার ছাড়িয়েছে। বিশ্ববাজারে দাম বৃদ্ধির কারণ হিসেবে বিশ্লেষকরা বলছেন, করোনায় অর্থনৈতিক মন্দায় স্বর্ণে বিনিয়োগ বেড়েছে। এদিকে, জুয়েলার্স সমিতি জানিয়েছে, পাচার রোধেই আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে দেশের বাজারে দাম বাড়ানো হচ্ছে।
করোনা মহামারীতে সারাবিশ্বের অর্থনীতিই যখন অনেকটা স্থবির, সেই সময় আন্তর্জাতিক বাজারে দফায় দফায় বাড়ছে স্বর্ণের দাম। গত ২০ দিনেই প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম বেড়েছে ২৪০ ডলারের বেশি। আর চলতি সপ্তাহের মঙ্গল ও বুধবার দুদিনে বেড়েছে প্রতি আউন্সে প্রায় ৭০ ডলার। ২৭ জুলাই ৯ বছরের রেকর্ড ভেঙে বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনার দাম ছাড়ায় ১৯৪৪ ডলার। বিনিয়োগ সুরক্ষার বিবেচনায় স্বর্ণে ঝুঁকছেন ব্যবসায়ীরা এমন মত বিশ্লেষকের।
বিআইআইএস গবেষক ড. মাহফুজ কবীর বলেন, এ মুহুর্তে যেহেতু অনেক মন্দা চলছে, সব বিনিয়োগই তেমনভাবে হচ্ছে না। তাই আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীরা স্বর্ণের দিকে ঝুঁকছেন।
বিশ্ববাজারে লাফিয়ে লাফিয়ে দাম বাড়ায় বুধবার বাংলাদেশের বাজারেও স্বর্ণের দাম বাড়িয়ে বিজ্ঞপ্তি দেয় বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি। এখন ২২ ক্যারেট স্বর্ণের প্রতিভরি ৭৭ হাজার ২১৫ টাকা, ২১ ক্যারেট ৭৪ হাজার ৭০ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৬৫ হাজার ৩২০টাকা এবং সনাতনী স্বর্ণ ৫৫ হাজার টাকা ।
বাজুস সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়াল বলেন, দাম যদি আমরা সমন্বয় না করি, তাহলে পার্শ্ববর্তী দেশে স্বর্ণ চলে যাওয়ার শংকা রয়েছে।
সবশেষ গত ২৪ জুলাই দেশের বাজারে প্রতিভরি স্বর্ণের দাম বাড়ানো হয় ২ হাজার ৯শ’ টাকা।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published.