টিম এক্সপ্রেসের ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী

BanshkhaliTimes

তরুণদের মাঝে সৃজনশীলতা চর্চার জন্য বাঁশখালীর জনপ্রিয় সামাজিক পোর্টাল ‘বাঁশখালী এক্সপ্রেস’ আয়োজন করেছিল ভার্চুয়াল ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতার। এতে জমাপড়ে ৫০০ শতাধিক ছবি। একজন পেশাদার ফটোগ্রাফারের সমন্বয়ে গঠন করা হয়েছিল বিচারক প্যানেল। প্রতিযোগিতা চলে গত ২৪ মে থেকে ৩১ মে, ২০২০ পর্যন্ত। বিচারক প্যানেল যাচাই-বাছাই শেষে বিজয়ী নির্বাচন করে। যেখানে ১ম, ২য়, ৩য় স্থান অর্জন করেন আল শাহরিয়ার বাবু, মোহাম্মদ তোহা, আরিফ উদ্দিন এবং যুগ্মভাবে ৪র্থ, ৫ম স্থান অর্জন করেন যথাক্রমে মীর আশিক আলী খাঁন, নোমান মোহাম্মদ সানভীর, আনোয়ার ইসলাম মঞ্জুর, চৌধুরানী নাজমুন নাহার। গত ১১ আগস্ট, ২০২০ তারিখে গুনাগরিস্থ রেস্টুরেন্ট ক্যাফে মামার বাড়ীতে আয়োজিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিজয়ী প্রতিযোগিদের মাঝে পূর্ব ঘোষিত সনদ ও প্রাইজবন্ড তুলে দেয়া হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপকমিটির সদস্য এসএম রিয়াজ উদ্দিন চৌধুরী সুমন।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি। বাঁশখালী এক্সপ্রেসের প্রতিষ্ঠাতা, প্রকাশক ও সম্পাদক রহিম সৈকতের সঞ্চালনায়, প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসএম রিয়াজ উদ্দিন চৌধুরী সুমন বলেন, সৃজনশীল কাজে তরুণদের আগ্রহ সব সময় বেশি এবং এই কাজে তাদের প্রতিভার যথাযথ প্রকাশ ঘটে। আগামীর ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতার বিষয় বস্তু যেন ধরে দেয়া হয় বাঁশখালীর পর্যটন সঙ্গে সম্ভাবনাকে। আপনারা হয়ত অনেকেই জানেন না বাঁশখালীতে বিরল এক সমুদ্র সৈকত আছে যা ক্লে বিচ নামে পরিচিত। বিশ্বের কাছে তা ফটোগ্রাফির মাধ্যমে পৌঁছে দিতে হবে।’
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নুরুল আজিম রনি বলেন, বাঁশখালীকে প্রচার করলে চট্টগ্রামকে প্রচার করা হয়, চট্টগ্রামকে প্রচার করলে বাংলাদেশকে প্রচার করা হয়।যথাযথ প্রচার প্রচারণার অভাবে এতদিন এই জনপদ পিছিয়ে ছিল। আশা করি আপনাদের মাধ্যমে তা পূরণ হবে। তরুণদের উদ্দীপ্ত করতে এই ধরনের আয়োজন বেশি বেশি প্রয়োজন। ‘
অনুষ্ঠানের সার্বিক দায়িত্বে নিয়োজিত ছিল বাঁশখালী এক্সপ্রেসের অপারেশন ম্যানেজার জুনায়েদ হাবীব, যুগ্ম আহবায়ক রেজাউল করিম, বার্তা সম্পাদক রিয়াজুল হক রিফাত, প্রতিনিধি তাফহীমুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য আবদুল্লাহ আল রিয়াদ, আরিফুল ইসলাম তুহিন, আবুল বায়ান, মিজানুর রহমান।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.