‘চট্টগ্রামে আলাদা মুদ্রণ শিল্পাঞ্চল পাবে প্রেস মালিক সমিতি’

বাঁশখালী টাইমস: চট্টগ্রাম প্রেস মালিক সমিতির কার্যালয় গত বুধবার উদ্বোধন করা হয়েছে। আন্দরকিল্লা সিটি কর্পোরেশন মার্কেটে কেক কেটে উক্ত কার্যালয় উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন। এতে চট্টগ্রাম প্রেস মালিক সমিতির সভাপতি দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক, সিনিয়র সহ সভাপতি সালেহ আহমদ, এম এ কাশেম চৌধুরী, গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, দৈনিক কর্ণফুলির সম্পাদক ও সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবসার উদ্দিন চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক সুবিমল দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল মালেক খান, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক উত্তম কুমার মজুমদার, প্রচার সম্পাদক এস এম সাইফুল ওয়াদুদ, মোহাম্মদ নুরন্নবী সবুজ, রঘু নাথ পাল, হাকিম সর্দার, জাহাঙ্গীর সত্তার, মোহাম্মদ জিল্লু, মো. সেলিম, মতিউর রহমান, জাকির হোসেন, মো. বেলাল, মো. মোমেন, ইকবাল হোসেন, মফিজুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি সালেহ আহমদ সোলেমান, সিনিয়র সহ সভাপতি আলহাজ্ব সাহাবুদ্দিন, রাজনীতিক মো. ইকবাল হাসান এতে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন লায়ন এম আইয়ুব। এ উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে চট্টগ্রাম নগরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মুদ্রণ প্রতিষ্ঠানের জন্য একটি শিল্পজোন নির্মাণে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন সিটি মেয়র । এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন- তিনিও প্রেস মালিক সমিতির সদস্য। তিনি মনে প্রাণে উপলব্ধি করেন চট্টগ্রাম প্রেস মালিকদের দু:খ-দুর্দশা। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে এসে মুদ্রণ শিল্পকে জীবিকার অন্যতম হাতিয়ার হিসেবে গ্রহণ করলেও প্রেস ব্যবসায়ীরা সেই কাঙ্ক্ষিত লক্ষে পৌঁছতে ব্যর্থ হয়েছেন। তিনি বলেন- চট্টগ্রামের প্রেস ব্যবসা আন্দরকিল্লা, মোমিন রোড ও সিরাজদৌল্লাহ রোডেই সীমাবদ্ধ। অথচ এগুলো আবাসিক এলাকা। এখানে ছাপাখানা বিদ্যমান থাকায় রাতে ছাপাখানার বিকট আওয়াজে শিক্ষার্থীসহ সর্বসাধারণের নানা অসুবিধা হয়। যেটি শিশুর মানসিক বিকাশে অন্তরায়। এঅবস্থায় সকল ছাপাখানাকে একটি সুবিধাজনক স্থানে স্থানান্তর করে মুদ্রণ শিল্পাঞ্চল গড়ে তোলার আশ্বাস দেন মেয়র।
সভাপতির বক্তব্যে দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক বলেন, ১৯৫২ সালে এ সমিতির কার্যক্রম শুরু হয়। দীর্ঘদিন একটি অফিসের অভাবে আমরা একেক সময় একেকজনের অফিসে বসে সমিতির কার্যক্রম চালিয়ে এসেছি। এঅবস্থায় প্রেস মালিকদের পক্ষ থেকে একটি অফিস ঘরের জন্য মেয়রের সহযোগিতা কামনা করা হয়। তিনি বলেন- মেয়র আমাদের প্রস্তাব গ্রহণ করে তাৎক্ষণিক চট্টগ্রাম প্রেস মালিক সমিতির অনুকূলে একটি অফিস ঘর বরাদ্দ দেন। দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বাস্তবায়ন হওয়ায় তিনি প্রেস মালিক সমিতির পক্ষ থেকে মেয়রকে ধন্যবাদ জানান।

Prottasha Coaching

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.