করোনা ভাইরাস ও সংক্রমণ সম্পর্কে জরুরী তথ্য

নভেল করোনা ভাইরাস শ্বাসতন্ত্রের রোগ। আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি কাশির মাধ্যমে এই রোগ ছড়ায়। নিজের সুরক্ষায় বারবার সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলুন, সর্দি-কাশির সময় টিস্যু পেপার দিয়ে অথবা কনুই ভাজ করে নাক-মুখ ঢেকে ফেলুন এবং হাঁচি কাশি আছে এমন ব্যক্তির সংস্পর্শ এড়িয়ে চলুন।

এর লক্ষণ হলো জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট হওয়া।

যদি জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট হয়, দ্রুত স্বাস্থ্য সেবা গ্রহন করতে হবে এবং স্বাস্থ্যকর্মীকে পূর্ববর্তী ভ্রমনের ইতিহাস জানাতে হবে। স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যাবার আগেই জানিয়ে যেতে হবে।

• সাবান দিয়ে ঘন ঘন আপনার হাত ধুয়ে নিন।
• সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন (একে অপরের থেকে ৩ ফুট)।
• হাত না ধুয়ে বা পরিষ্কার না করে চোখ, নাক এবং মুখ স্পর্শ করবেন না।
• শ্বাস প্রশ্বাসের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অনুশীলন করুন।
• জীবাণু থেকে রক্ষা পেতে ও নগ্ন হাতে মুখ এবং নাকের স্পর্শে বাধা দেওয়ার জন্য মাস্ক ব্যবহার করুন।
• আপনার যদি জ্বর, কাশি এবং শ্বাস নিতে সমস্যা হয় তবে তাড়াতাড়ি চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
• জনসাধারণ / সামাজিক ভিড় / জমায়েত এড়িয়ে চলুন।
• গণপরিবহন ব্যবহার এবং অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ এড়িয়ে চলুন।
• যথাসম্ভব ঘরে থাকুন।
• জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা কর্তৃপক্ষের দেওয়া পরামর্শগুলি অনুসরণ করুন।

কিছু প্রশ্ন ও উত্তরঃ

প্রশ্নঃ রসুন খাওয়া কি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে কাজ করবে?
উত্তরঃ নভেল করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে রসুন কার্যকর – এমন কোন প্রমান পাওয়া যায়নি।

প্রশ্নঃ চীন বা নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে এমন দেশ থেকে আসা কোন চিঠি বা পার্সেল গ্রহন করা কি নিরাপদ?
উত্তরঃ হ্যাঁ, নিরাপদ। এরকম দেশ থেকে আসা কোন চিঠি বা পার্সেল যদি কেউ গ্রহণ করে তবে তিনি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকিতে পরবেননা। ইতিমধ্যে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে আমরা জানি যে মানবদেহের বাইরে এই ভাইরাস বেশিক্ষণ বাঁচেনা।

প্রশ্নঃ গৃহপালিত প্রাণী কী করোনা ভাইরাস ছড়াতে পারে ?
উত্তরঃ ঘরের পোষা প্রাণী ( যেমন- বিড়াল/কুকুর ইত্যাদি ) নভেল করোনা ভাইরাস দিয়ে আক্রান্ত হয় এমন কোন প্রমাণ এখনো পাওয়া যায়নি । তবে পোষা প্রাণীর সংস্পর্শে আসার পর সব সময় সাবান-পানি দিয়ে হাত ধোওয়া উত্তম।

প্রশ্নঃ মশার কামড়ে কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস ছড়ায়?
উত্তরঃ মশার কামড়ে কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস ছড়ায় এমন কোন তথ্য/ প্রমাণ এখনো পাওয়া যায়নি ।

প্রশ্নঃ নভেল করোনা ভাইরাস কি উষ্ণ ও আর্দ্র আবহাওয়ায় বাঁচতে পারে?
উত্তরঃ হ্যাঁ, কোভিড-১৯ ঠাণ্ডা ও শুষ্ক আবহাওয়ার দেশের পাশাপাশি উষ্ণ ও আর্দ্র আবহাওয়ার দেশেও বিস্তার লাভ করেছে। যেখানেই থাকুন, যে আবহাওয়াই থাকুক না কেন, সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরি। বারবার হাত ধুয়ে ফেলুন, সর্দি-কাশির সময় টিস্যু পেপার দিয়ে অথবা কনুই ভাজ করে নাক-মুখ ঢেকে ফেলুন এবং ব্যবহৃত টিস্যুটি ঢাকনা যুক্ত ময়লার ঝুড়িতে ফেলুন।

প্রশ্নঃ ‘হ্যান্ড ড্রায়ার’ কি নতুন করোনা ভাইরাস ধ্বংসে কার্যকরী?
উত্তরঃ না, “হ্যান্ড ড্রায়ার” নভেল করোনা ভাইরাস ধ্বংসে কার্যকরী নয় । সুরক্ষার জন্য দুইহাত বারে বারে সাবান-পানি দিয়ে বা হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে পরিষ্কার করুন । হাত পরিষ্কারের পর টিস্যু দিয়ে হাত মুছে শুকিয়ে ফেলুন।

প্রশ্নঃ আলট্রা- ভায়োলেট জীবাণুনাশক ল্যাম্প কি নতুন করোনা ভাইরাস ধ্বংস করতে পারে?
উত্তরঃ এ ধরণের কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। বরং হাত বা শরীরের অন্য কোন অংশ জীবাণুমুক্ত করার জন্য আলট্রা- ভায়োলেট ল্যাম্প ব্যবহার করা উচিত না। এর ফলে ত্বকে সমস্যা হতে পারে।

প্রশ্নঃ কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস কী বাতাসে ছড়ায় (যেমন- এয়ার কন্ডিশন বা ই- সিগারেটের মাধ্যমে) ?
উত্তরঃ বর্তমান প্রমাণ সাপেক্ষে দেখা গেছে যে আক্রান্ত ব্যক্তির কাছাকাছি থাকলে অথবা তার হাঁচি- কাশির মাধ্যমে, কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা থাকে। এই হাঁচি- কাশির মাধ্যমে ভাইরাস এক মিটারের বেশি যেতে পারেনা, বাতাসেও ভাসতে পারেনা। কিন্তু যে কোন কিছুর উপরিভাগে অবস্থান নিতে পারে। এই জন্য হাত পরিষ্কার করা এবং কাশির সময় নাক-মুখ ঢাকা অত্যন্ত জরুরী।

প্রশ্নঃ অ্যালকোহল (মদ)পান করলে কী কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষা পাওয়া যায়?
উত্তরঃ না। অ্যালকোহল (মদ) পান করলে কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষা পাওয়া যায় না।

প্রশ্নঃ করোনা ভাইরাসে শুধু কি বয়স্করাই আক্রান্ত হবে, নাকি তরুণরাও ঝুঁকিতে?
উত্তরঃ যে কোন বয়সের ব্যক্তি নভেল করোনা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হতে পারে। বয়স্ক এবং যাদের আগে থেকে কোন অসুস্থতা আছে (এজমা, ডায়বেটিস, হৃদরোগ), এমন ব্যক্তির গুরুতর অসুস্থ হবার ঝুঁকি বেশি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সব বয়সী মানুষকে এই ভাইরাস থেকে প্রতিরক্ষামুলক ব্যবস্থা মেনে চলার উপদেশ দিয়েছে।

প্রশ্নঃ অ্যান্টিবায়োটিক কী নভেল করোনা ভাইরাস এর চিকিৎসা বা প্রতিরোধে কার্যকরী?
উত্তরঃ না, অ্যান্টিবায়োটিক ভাইরাস-এর বিরুদ্ধে নয়, ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে কার্যকরী। নভেল করোনা ভাইরাস এক ধরনের ভাইরাস বিধায় এর চিকিৎসায় বা প্রতিরোধে অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করা উচিত নয়। তবে কেউ যদি করোনা ভাইরাস দিয়ে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন, তিনি ব্যাকটেরিয়ার দ্বারা সহ- সংক্রামণের জন্য অ্যান্টিবায়োটিক পেতে পারেন।

প্রশ্নঃ নভেল করোনা ভাইরাস এর চিকিৎসা বা প্রতিরোধে কার্যকরী কোন ঔষধ আছে কী?
উত্তরঃ না, এখনো পর্যন্ত নভেল করোনা ভাইরাস এর চিকিৎসা বা প্রতিরোধে কার্যকরী কোন ঔষধ নেই। কিন্তু আক্রান্ত ব্যক্তিদের উপসর্গ উপশমের জন্য উপযুক্ত চিকিৎসা এবং গুরুতর অসুস্থদের জন্য পর্যাপ্ত স্বাস্থ্য সেবা দিতে হবে । সুনির্দিষ্ট চিকিৎসা ব্যবস্থা পরীক্ষাধীন, যা ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল এর মাধ্যমে সম্পন্ন হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও তার সহযোগী প্রতিষ্ঠানসমূহ এই সংক্রান্ত গবেষণা ত্বরান্বিত করার জন্য সহযোগিতা করছে।

প্রশ্নঃ করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নিউমোনিয়া ভ্যাকসিনের কোন ভূমিকা আছে?
উত্তরঃ না, করোনা ভাইরাস জনিত রোগে নিউমোনিয়া ভ্যাকসিনের কোন ভূমিকা নেই। করোনা ভাইরাস সম্পূর্ণ নতুন হওয়ায় এর জন্য আলাদা ভ্যাকসিনের প্রয়োজন হবে। বর্তমানে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সহায়তায় গবেষকরা এই ভ্যাকসিন উদ্ভাবনের কাজ করে যাচ্ছে।

প্রশ্নঃ স্যালাইন দিয়ে নিয়মিত নাক পরিষ্কার করে কি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ সম্ভব?
উত্তরঃ না, স্যালাইন দিয়ে নিয়মিত নাক পরিষ্কার করলে করোনাভাইরাস সংক্রামণপ্রতিরোধ সম্ভব – এমন কোন নিশ্চিত প্রমান পাওয়া যায়নি।

প্রশ্নঃ পর্যাপ্ত পানি পান করলে কি কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষা পাওয়া যাবে?
উত্তরঃ পর্যাপ্ত পানি পান করা শরীরের জন্য উপকারি কিন্তু তা কোভিড-১৯ সংক্রমণ বা করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষা দেয় না।

প্রশ্নঃ কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কী ধরনের জীবাণুনাশক ব্যবহার করবো ?
উত্তরঃ যদি কোন কিছুর উপরিভাগ ময়লা থাকে সাধারণ সাবান ও পানি দিয়ে তা পরিষ্কার করা যাবে। এর উপাদান সমূহ (সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইড) ব্যাকটেরিয়া, ফাঙ্গাস এবং ভাইরাস দমনে সাহায্য করে।

প্রশ্নঃ দোকানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার শেষ হয়ে গেলে কী করব?
উত্তরঃ সাধারণ সাবান দিয়ে হাত ধুলেও কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষা পাওয়া যায়। মনে রাখতে হবে আঙুলের ভাজে, সামনে ও নখের চারপাশ ভালভাবে পরিষ্কার করা জরুরী।

প্রশ্নঃ কিভাবে নিশ্চিত হবো যে কাপড় ও বিছানার চাদর দিয়ে কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস ছড়ায় না?
উত্তরঃ অপরিষ্কার কাপড় পরিধান করা উচিত না। গরম পানি, ডিটারজেন্ট বা সাবান দিয়ে ধুয়ে তা পরিধান করা উচিত। সম্ভব হলে প্যাকেটের গায়ের নির্দেশিকামত ক্ষার ব্যবহার করা উচিত। সূর্যের তাপে, মেশিন দিয়ে শুকিয়ে কাপড় পরিধান করা উচিত।

প্রশ্ন: আইডিসিআর এর হটলাইন নাম্বার কোনগুলো?
উত্তরঃ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে মনে হলে বা এই সংক্রান্ত তথ্য পাওয়ার জন্য The Institute of Epidemiology, Disease Control and Research (IEDCR), Bangladesh এর হটলাইন নাম্বারঃ
01401184551, 01401184554, 01401184555, 01401184556, 01401184559, 01401184560, 01401184563, 01401184568, 01927711784, 01927711785, 01937000011, 01937110011

করোনা ভাইরাস ও কোভিড-১৯ সম্পর্কে নির্ভরযোগ্য ও নতুন আপডেট পেতে www.who.int/covid-19 এই সাইটে ভিজিট করুন।

WHO এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট অনুসরণ করে লিখেছেন: নুর মোহাম্মদ ফেরদৌস, ডেভলপমেন্ট প্রফেশনাল, একটি আন্তর্জাতিক উন্নয়নমূলক সংস্থায় কর্মরত

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

কোভিড-১৯

ঘরে থাকুন, নিরাপদ থাকুন। - জনস্বার্থে বাঁশখালী টাইমস