করোনা উপসর্গসহ দ্বিতীয় রোগীর লাশ দাফনেও দানেশ ফাউন্ডেশন

BanshkhaliTimes

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঁশখালী টাইমস: বাঁশখালীতে এ পর্যন্ত করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন দুইজন। আজ বুধবার সকাল ১০ টায় শেখেরখীলে করোনা উপসর্গে মারা যাওয়া শওকত আলম চৌধুরীর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান।

এবারও স্বাস্থ্যবিধি মেনে লাশ দাফনে নেতৃত্ব দিয়েছেন দানেশ ফাউন্ডেশন। দানেশ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা, বীরমুক্তিযোদ্ধা ও লাল বাহিনীর প্রধান দানেশ আহমদ চৌধুরীর বড় ছেলে আদিল মোহাম্মদ সরফরাজ চৌধুরীর সশরীরে দাফন কাজে অংশ নেন। তাঁর সার্বিক তত্ত্বাবধানে দানেশ ফাউন্ডেশনের নিবন্ধিত ৯ জন মানবিক যোদ্ধা ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ২ জন সদস্য এতে অংশ নেন।

এ প্রসঙ্গে শেখেরখীলের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইয়াছিন বাঁশখালী টাইমসকে বলেন- ‘ইউএনও মহোদয়ের ফোন পেয়ে আমি মরহুমের বাড়িতে যাই, পুরো দাফন কাজে অংশ নিয়েছেন দানেশ ফাউন্ডেশন ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের নিবেদিত প্রাণ স্বেচ্ছাসেবীরা। দানেশ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা আদিল সাহেবও সশরীরে অংশ নিয়েছেন।’

যারা অংশ নিয়েছেন তাঁরা হলেন- আদিল মো. সরফরাজ চৌধুরী, মাওলানা ইসহাক, শফকত হোসাইন চাটগামী, মাওলানা ক্বাজী শাহাব উদ্দীন, মাওলানা দলিলুর রহমান, মাওলানা সাঈদুল আলম আশরাফী, মাওলানা ইসমাইল, মাওলানা, রায়হান, মো কাদের মো মাহফুজ, শোয়াইবুল ইসলাম প্রমুখ।

দাফন কাজের যাবতীয় উপকরণ সরবরাহ করেন দানেশ ফাউন্ডেশন।
এদিকে এই দুর্যোগে ফ্রন্টলাইনার হিসেবে দানেশ ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসা- সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ মানুষের মুখে মুখে প্রশংসা ছড়িয়ে পড়েছে।
বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সহকারী সার্জন ও করোনা ফোকাল পারসন ডা. সওগাত উল ফেরদাউস বলেন- ‘বীরমুক্তিযোদ্ধা ও সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান আদিল চৌধুরী, তিনি চাইলে অন্য ১০ জন বিত্তশালী যুবকের মতো ঘরে বসে স্ট্যাটাস দিতে পারতেন। কিন্তু তা না করে এই মানবিক যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে প্রকৃত মানবসেবীর পরিচয় দিয়েছেন।’

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.