এই সেই কালীপুর স্কুল || আমজাদুল আলম

এই তো সেই কালীপুর স্কুল-এইতো সেই আমি!!
————————————————————-
এই তো সেই দিন-বাবার হাতটি ধরে এই স্কুলের আঙ্গিনায় পা রেখেছি-
একি সারিতে ‘আমার সোনার বাংলা’- সুরে সবাই মিলেছি।
ক্লাসের প্রথম দিনের অবাক দৃষ্টির অপরিচিত মুখগুলো-
ভালবাসার বন্ধনে স্কুলের বিদায় বেলায় পরলো চোখের জ্বলগুলো।
আজও একই আছে সেই স্কুল- একি আছে পথের ধুলো
এক ই আছে সেই উচ্ছাস- শুধু বদলে গেছে প্রিয় মুখগুলো।
কোন স্যারের কথা রেখে কোন স্যারের কথা বলি!
শাষনে-আদরে যে মাখা সেই মধুময় দিনগুলি।
আজিজ স্যারের পিতৃসুলভ স্নেহের কথা ভাবতেই লাগে ভালো-
মতিন স্যারের ব্যক্তিত্ব ছড়াতো যেনো আলো।
প্রিয় এমরান স্যারের হাস্যোজ্জল কথা-‘পড়া না পারলে সোজা গার্ল স্কুল’!!
ঝিমিয়ে পড়ানো এক স্যারকে ‘রানিক্ষেত’ ডাকলেই হয়ে যেতো হুরস্তুল !!
মোজাম্মেল স্যারের সুন্দর-সাবলীল ইংরেজী পড়ানোর কথা সবার আছে জানা-
ভাষা জ্ঞানে দক্ষ চন্দন স্যারকে কেনো সবার ছিলো ভয়- তা আজও অজানা !
তাহের স্যারের পদার্থ বিজ্ঞান বুঝানোর ক্ষমতা ছিলো অসাধারন-
অমায়িক পরীক্ষিত স্যারের স্নেহের কথা কি আর করব বর্ণন!
জুলফিকার স্যারের স্কাউটে শখা নৃত্য- বিজয় নৃত্যে ছড়াতো হাসির ফুলঝুড়ি-
আকতার স্যার-হারুন স্যারের কথাও কি আর ভুলতে পারি !
আর কারো পড়া না শিখলেও নুরুলহুদা হুজুরের পড়া শিখতাম!-
পন্ডিত স্যারের মাইর কি ছিলো তা বন্ধুদের পিঠ দেখেই বুঝতাম !
এই প্রিয় স্যাররাই শাসন করেছেন ভালোর জন্য-
ক্ষমা করেছেন ভুলের জন্য-গড়ে তুলেছেন আগামীর জন্য।
এই যে সবাই ভালো আছি- কিংবা যদি বলি এই আমি- !!
স্যাররা ভীত মজবুত না করলে উজ্জল সূর্যও দিন দুপুরে হতো অস্তগামী।
———————- ———————-

আমজাদুল আলম
কর্মকর্তা-(ডাটাবেজ এডমিনিস্ট্রেটর)- ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক লিমিটেড
আইটি ডিভিশন-প্রধান কার্যালয়-ঢাকা
ব্যাচ-২০০০

Prottasha-Coaching

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.